মেইন ম্যেনু

বাস্তবকেও হার মানানো চীনা রোবট নারী!

প্রথম দেখায় জিয়া জিয়া-কে রূপসী বলতে বাধ্য যে কেউ। চীনা নারীর স্বাভাবিক উচ্চতা, নারীসুলভ শারীরিক গঠন, গোলাকার মুখ, ফর্সা গালে লালচে আভা, মঙ্গোলীয় টানা চোখ, পাতলা ঠোঁট। একজন সুন্দরী বলার সবকিছুই উপস্থিত থাকা জিয়া জিয়া কোনো নারী নয়, মানুষের হাতে তৈরি নারীর মতো গঠনের রোবট।

ডেইলি মেইল জানিয়েছে, শুধু বাহ্যিক গঠনের কারণেই নয়, কথাবার্তা ও আচরণেও জিয়া জিয়াকে নারী বলে ভ্রান্ত হতে হয়। কারণ এর চোখের চাহনী ও হাত-মুখ নাড়ানোর সবকিছুই মানুষের মতো। জিয়া জিয়া কথা বলতে পারে, মুখে প্রদর্শনযোগ্য সব আবেগই প্রদর্শন করতে পারে। কথা বলার সময় এটি স্বাভাবিক মানুষের মতোই ঠোঁট ও হাত নাড়ায়। জিয়া জিয়া তৈরি করেছে চীনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এতে নেতৃত্ব দেন গবেষক চেন জিয়াওপিং। জিয়া জিয়া তৈরিতে গবেষকদের তিন বছর সময় লাগে।

সম্প্রতি চীনের অ্যানহুই প্রদেশের রাজধানী হেফেইয়ে এক প্রযুক্তি সম্মেলনে জিয়া জিয়াকে প্রদর্শন করা হয়। গবেষকদের দাবি, মানুষের মতোই দেখতে তৈরি করা রোবটদের মধ্যে সবচেয়ে বাস্তবসম্মত জিয়া জিয়া। মানুষ ও যন্ত্রের মধ্যে এটি পার্থক্য করতে পারে। আর ইন্টারনেটে থাকা তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এটি মানুষকে কাজে সহায়তা করতে পারে।

সিনহুয়া নেট জানিয়েছে, সম্মেলনে জিয়া জিয়া সাবলীলভাবে কথা বলে। ছবি তোলার সময় কাছে আসতে নিষেধ করে এই রোবট। রোবট বানিয়ে তাক লাগিয়ে দেওয়া চীনের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চেন জিয়াওপিং ও তাঁর সহকর্মীদের জন্য নতুন নয়। এর আগে ২০১৪ সালে প্রথম কাজের রোবট ‘কেজিয়া’ তৈরি করেন তাঁরা। রোবোকাপেও সফল হয় কেজিয়া। তবে জিয়া জিয়াকে কোনো প্রতিযোগিতায় পাঠানো হবে না বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।