মেইন ম্যেনু

বায়ুদূষণে বছরে ৩০ লাখ মানুষের অকাল মৃত্যু

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শহর এলাকায় বায়ুদূষণের কারণে প্রতি বছর ৩০ লাখ মানুষের অকাল মৃত্যু ঘটছে বলে এক জরিপে তুলে ধরেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

বৃহস্পতিবার নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় সংস্থাটি। বিশ্বের শতাধিক দেশের তিন সহস্রাধিক শহরে এ জরিপ পরিচালিত হয়।

জরিপে বলা হয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শহর এলাকায় বায়ুদূষণ আশঙ্কাজনকহারে বাড়ছে। বায়ুদূষণের কারণে মস্তিষ্কে রক্তরক্ষণ, হৃদরোগ, ফুসফুসের ক্যান্সার ও অ্যাজমাসহ দীর্ঘমেয়াদি শ্বাসপ্রশ্বাসজনিত সমস্যা আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ও আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে।

প্রতিবেদন অনুসারে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শহরে বসবাসকারী শতকরা ৮০ ভাগ মানুষ বায়ুদূষণের শিকার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বায়ুর স্বাভাবিক যে মাত্রা নির্ধারণ করেছে সেই মাত্রার চেয়ে শহরে বায়ুদূষণের মাত্রা অনেক বেশি।

জরিপে আরো বলা হয়, নিম্ন ও মধ্য আয়ের দেশের শহর, যেখানে ১ লাখের বেশি মানুষ বসবাস করে সেখানকার শতকরা ৯৮ ভাগ মানুষই বায়ুদূষণের শিকার হয়। তবে উন্নত দেশে বায়ুদূষণের শতকরা হার ৫৬ ভাগ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহকারী মহাপরিচালক (পরিবার, নারী ও শিশু স্বাস্থ্য) ড. ফ্লাবিয়া বুসট্রিও বলেন, নারী, পুরুষ ও শিশু নির্বিশেষে বিভিন্ন রোগব্যাধিতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর প্রধান কারণ বায়ুদূষণ।

তবে সুখবর হলো বিভিন্ন শহর বায়ুদূষণের মাত্রা মনিটর করছে। যার মাধ্যমে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।



« (পূর্বের সংবাদ)