মেইন ম্যেনু

বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনে চরম হয়রানি: সিম প্রতি নিচ্ছে ২০ টাকা

সিরাজুল ইসলাম শিশির, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জতে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে গ্রামীনফোন সিম নিবন্ধনে চরম হয়রানির শিকার হচ্ছেন গ্রাহকরা। সিম নিবন্ধনের জন্য ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি, পাসপোর্ট সাইজ ছবি, সিম সহ মোবাইল ফোন সিরাজগঞ্জ কাস্টোমার কেয়ার সেন্টারে অনেকেই ভীড় করছে।
একই সাথে জুবলী প্লাজায় মলি ইলেকট্রনিক্স প্রতি সিম নিবন্ধন করতে নিচ্ছে ২০ টাকা করে। তারা টাকা ছাড়া কোনো সিম নিবন্ধন করছে না । যদিও সিম নিবন্ধন করে টাকা নেওয়া সপ্নণূ অবৈধ করছে সরকার। তারা কি কারণে টাকা নিচ্ছে একথা জিগ্সাস করলে তারা লোকজনদের সাথে চরম দূর্ব্যবহার করছে।

এ বিষয়ে মলি ইলেকট্রনিক্স সিম নিবন্ধনে নিয়োজিত লোকের সাথে আলাপ করলে তারা জানায়, ‘এটা কোম্পানীর বা সরকারী কোন প্রতিষ্ঠান না। এটা ব্যক্তিমালিকানা প্রতিষ্ঠান। আমরা যখন ইচ্ছা নিবন্ধন করবো, ইচ্ছে না হলে নিবন্ধন না করবো। এতে আমাদের কিছু আসে যায় না। প্রয়োজন হলে গ্রাহকদের আমাদের কাছে আসতেই হবে। যতোই ঘুরোক তাদের কিছুই করার নেই।’

পাশেই বাংলালিংক সিম নিবন্ধনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তারা যত্ন সহকারে কাস্টোমারদের সাথে ভালো ব্যবহার করছেন এবং সাথে সাথে সিম নিবন্ধন করে দিচ্ছেন। বাংলালিংক গ্রাহকরা সিম নিবন্ধন করতে পেরে নিজেরা সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছেন।

পাশাপাশি গ্রামীনফোন কোম্পানী বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় মোবাইল সিম অপারেটর হিসেবে পরিচিত। কাস্টোমারদের প্রতি এতো উদাসীনতা, চরম দূব্যবহার ও ভোগান্তির কথা জানান নিবন্ধন করতে আসা লোকজন।

এসব বিষয়ে গ্রামীনফোন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানালে, তারা এ বিষয়ে ব্যবস্থ্য নেওয়ার আশ্বাস দেন।