মেইন ম্যেনু

বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন নিয়ে যা বললেন তারানা

বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আবারো আহ্বান জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। বলেছেন, অবৈধ ও একটি জাতীয় পরিচয়পত্রের বিপরীতে অসংখ্য সিম থাকার ফলে অপরাধীরা অপরাধ করে পার পেয়ে যাচ্ছে। অনেক নিরপরাধও ফেঁসে যাচ্ছেন। সেকারণে বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধনে সহযোগিতার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

তারানা হালিম বলেন, একটি এনআইডির বিপরীতে ৬০ হাজার সিম নিবন্ধন হয়েছে। তারা ওই সিমগুলো দিয়ে অপহরণ, চাঁদাবাজি এমনকি অবৈধ ভিআইপি করছে। কিন্তু সিমটি যার নিবন্ধকৃত তাকেই কিন্তু সবধরণের সমস্যায় পড়তে হয়।

তাই আমরা চাচ্ছি জিনিসটি একটি নিয়মতান্ত্রিকতার ভিতরে আনতে। এজন্য সবাইকে বারবার আহ্বান করছি, ডাটাবেজটা আছে কেবল এনআইডির কাছে। এবং মোবাইল অপারেটরের কাজ হচ্ছে শুধুমাত্র এগুলো ভেরিফাই করা।

তবে একটি মহল অপপ্রচার চালিয়ে বারবার বলার চেষ্টা করছে এর মাধ্যমে নাকি তথ্য সংগৃহীত হচ্ছে এছাড়া ফিংগার প্রিন্টে নাকি তথ্য সংগৃহীত হচ্ছে। তাদের কথা থেকেই তো বোঝা যাচ্ছে তারা কতোখানি অপপ্রচার চালাচ্ছে। কারণ ফিংগার প্রিন্ট আর তথ্য এক জিনিস নয়। জনগণকে আহ্বান জানাবো অপপ্রচারে কান না দিয়ে যার যার সিমের মালিকানা সে নিবেন, এতে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই।

তিনি আরো বলেন, কাজটি যদি সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে বলে মোবাইল ফোনের অপরাধগুলো একদম কমে যাচ্ছে। ভবিষ্যতে কাজটি শেষ হলে মোবাইল ফোনে হুমকি দেয়ার মতো ঘটনা আরো কমে যাবে বলে আশা করছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী।