মেইন ম্যেনু

বিএনপিকে ধ্বংস করাই আওয়ামী লীগের একমাত্র এজেন্ডা

বিএনপিকে ধ্বংস করাই আওয়ামী লীগের একমাত্র এজেন্ডা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নগর বিএনপির আহ্বায়ক মির্জা আব্বাস।

শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনস্থ ভাসানী ভবন মিলনায়তনে এক যৌথসভায় সভাপতির বক্তব্যে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশ্য করে মির্জা আব্বাস বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ দলের সকল নেতাকর্মীকে জেলে নিয়ে আওয়ামী লীগ একাই রাজত্ব চালাবে বলে ভাবছে। ভুলে যাবেন না, বিএনপি থেমে থাকার দল নয়।

তিনি বলেন, ‘সরকার পতন কিংবা ক্ষমতায় যেতে বিএনপি আন্দোলন করছে না, বিএনপি মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় রাজপথে আন্দোলন করে যাচ্ছে। কাউকে ছোবল দিতে বা আক্রমণ করতে নয়, আমরা চাই স্বাধীনতার স্বার্বভৌমত্বে অস্থিত্ব রক্ষা করতে। এজন্য রাজপথে নামলে বিএনপি’র নেতাকর্মীদের উপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন।’

যে দেশে গণতন্ত্র চাপা দেয়া হয়, সে দেশেই জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটে বলেও মন্তব্য করেন নগর বিএনপির এ আহ্বায়ক।

দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে বিএনপি নেতা আব্বাস বলেন, ‘দয়া করে বিশ্রাম নেয়া বাদ দেন, নিজে বেঁচে থাকতে দেশের স্বার্থে রাজপথের আন্দোলনে শরিক হন। মনে রাখবেন আওয়ামী লীগ অসৎ উদ্দেশ্য ছাড়া রাজনীতি করতে পারে না। তাই সবাইকে এ ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে।’

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা’ মামলায় চার্জশিট দেয়ার প্রতিবাদে আগামী ১৬ মে নগর বিএনপি সমাবেশ করবে বলেও ঘোষণা দেন মির্জা আব্বাস।

যৌথ সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সালাম, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল খায়ের ভূইয়া, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, মহানগর বিএনপির নেতা কাজী আবুল বাশার, আনোয়ারুজ্জামান আনোয়ার, মুন্সি আবুল বাসেদ আঞ্জু, ইউনুছ মৃধা, আবুল খায়ের বাবলুসহ ঢাকা মহানগরের বিএনপি ও তার অঙ্গ, সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।