মেইন ম্যেনু

বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীর বাড়িতে হামলা : আহত ৪০

কল্যাণ কুমার চন্দ, বরিশাল: বরিশালের গৌরনদী উপজেলার সরিকল ইউনিয়নে বিএনপির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান এস.এম মনজুর হোসেন মিলনের বাড়িতে শনিবার বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করেছে নৌকা প্রার্থীর সমর্থকেরা। হামলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর স্ত্রী খালেদা বেগমসহ কমপক্ষে ১৫নারী আহত হয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, হামলা চলাকালীন সময় গ্রামবাসী মসজিদের মাইকে হামলাকারীদের প্রতিরোধ করার ডাক দেয়ায় গ্রামের সহ¯্রাধীক নারী-পুরুষ তাৎক্ষনিক হামলাকারীদের ধাওয়া করে। এসময় গ্রামবাসীর হাতে ছাত্রলীগের কমপক্ষে ২৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

এছাড়াও ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী হামলাকারীদের ২০টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে পাশ্ববর্তী পুকুর ও ডোবায় ফেলে দিয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওইদিন বেলা দুইটার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী মনজুর হোসেন মিলনের স্ত্রী খালেদা বেগম জানান, বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা শতাধিক মোটরসাইকেলের মহড়া নিয়ে তাদের কুড়িরচর গ্রামের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। হামলাকারীরা তাকেসহ (খালেদা বেগম) একই বাড়ির মিনারা বেগম, সাথী আক্তার, ছেনোয়ারা বেগম, কুলসুম বেগম, রোকেয়া বেগম, মাসুদা বেগমসহ কমপক্ষে ১৫জনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। তিনি আরও জানান, হামলাকারীরা ইউনিয়নের বিভিন্ন বাজারে টানানো তাদের ব্যানার ও পোস্টারে অগ্নিসংযোগ করে।

একাধিক সূত্রে জানা গেছে, হামলা চলাকালীন সময় স্থানীয় মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে সন্ত্রাসী প্রতিরোধে গ্রামবাসীদের এগিয়ে আসার আহবান করা হয়। তাৎক্ষনিক গ্রামের সহ¯্রাধীক নারী-পুরুষ লাঠিসোটা নিয়ে হামলাকারীদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে।

এসময় গ্রামবাসীর হামলায় জুয়েল মৃধা, নাসির মোল্লা, জহির খান, রুবেল মৃধা, ফরিদ খান, আলমগীর কবিরাজ, এমদাদ হোসেনসহ কমপক্ষে ২৫জন আহত হয়। গুরুতর আহতদের গৌরনদী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়াও ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী হামলাকারীদের ২০টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। খবর পেয়ে গৌরনদী থানা, সরিকল পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের বিপুল পরিমান পুলিশ ও র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুপুর দুইটার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে সরিকল ইউনিয়ন পরিষদের আ’লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারুক হোসেন মোল্লা বলেন, আমার সমর্থকদের গণসংযোগের সময় বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকেরা হামলা চালিয়ে মোটরসাইকেল ভাংচুর ও কর্মীদের আহত করেছে।

এ ঘটনা ধামাচাঁপা দেয়ার জন্য নিজেরা নিজেদের বাড়িতে ভাংচুর করে ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা করছে। গৌরনদী থানার ওসি মোঃ আলাউদ্দিন মিলন বলেন, এ ব্যাপারে এখনও কেউ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।