মেইন ম্যেনু

‘বিএনপির ভিডিওচিত্র প্রচারে বাধা দিয়েছে সরকার’

ইসির অনুমতি নিয়ে পৌর নির্বাচনে ভোট চেয়ে বিএনপি একটি ভিডিওচিত্র বানালেও সরকারের খবরদারির কারণে তা গণমাধ্যমে প্রচার করার সম্ভব হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে বিএনপির অন্যতম অঙ্গ সংগঠন কৃষকদলের ৩৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এই অভিযোগ করেন।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘পৌর নির্বাচন উপলক্ষে ইসির অনুমতি নিয়ে আমরা একটি ভিডিও বিজ্ঞাপনচিত্র তৈরি করেছিলাম। কিন্তু সরকারের খবরদারিতে কোনো মিডিয়া সেটি প্রচার করতে সাহস পায়নি।’

এখন গণতন্ত্রকে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘বিরোধী রাজনৈতিক দলকে কোনো সভা-সমাবেশ করতে দেওয়া হয় না। এখন বলা হচ্ছে, সভা করতে হলে পুলিশের অনুমতি লাগবে। এটি বর্তমান গণতন্ত্রের চিত্র।’

বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে সরকারের ‘দুরভিসন্ধি’ ব্যর্থ হয়েছে বলেও দাবি করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।

তিনি বলেন, ‘সরকার দুরভিসন্ধি করে দলীয় প্রতীকে পৌর নির্বাচন দিয়েছে। তারা ভেবেছিল বিএনপি নির্বাচনে আসবে না। তারা এককভাবে নির্বাচন করে জনপ্রিয়তা প্রমাণ করতে চেয়েছিল। কিন্তু তাদের পরিকল্পনা ব্যর্থ করে দিয়ে বিএনপি নির্বাচনে এসেছে। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত মাঠে থাকব। দেখাতে চাই, বাংলাদেশের মানুষ ধানের শীষের সঙ্গেই আছে। আওয়ামী লীগকে বর্জন করেছে।’

সরকার গণতন্ত্রের মুখোশ পরে একদলীয় কায়দায় দেশ চালাচ্ছে, অভিযোগ করে এর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

চরম অবহেলার কারণে কৃষকেরা কৃষি কাজ ছেড়ে দিচ্ছেন, এমন তথ্য দিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজ কৃষকেরা অবহেলিত। তারা ন্যায্য মূল্য পায় না। অথচ জিয়াউর রহমান কৃষি ইনস্টিটিউট করে কৃষি কাজকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন। বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুঁড়ি থেকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছেন।’

পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ পর্যন্ত বিএনপির ৬ হাজার নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি করেন মির্জা ফখরুল।

আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদুর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কৃষকদলের সহসভাপতি এম এ তাহের, নাজিম উদ্দিন মাস্টার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তকদির হোসেন জসিম প্রমুখ।