মেইন ম্যেনু

বিএনপি-আ.লীগ ভাই ভাই !

জাতীয় রাজনীতিতে যেখানে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মধ্যে দা-কুমড়া সম্পর্ক সেখানে প্রথম পর্বের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চিত্রটা ঠিক উল্টো। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি যেন ভাই ভাই। ভ্রাতৃত্ব সম্পর্ক নিয়েই যেন সবাই ভোট উৎসবে মেতেছেন।

মঙ্গলবার পৌনে ১০টায় মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান থানার বাসাইল ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ঘোরামারা ভোট কেন্দ্রেও একইচিত্র দেখা গেছে।

কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ দলীয় সমর্থিতরা সবাই ভোট দিচ্ছেন। হার জিতে সংঘাত চায় না এলাকাবাসী। শামসুল আলম নামে এক বয়স্ক ভোটার জানান, বহু কাল ধরে তিনি দেখে আসছেন বাসাইল ইউনিয়নে ভোট নিয়ে কখনো সংঘাতে জড়ায়নি এলাকাবাসী। তবে এবার দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় সে শঙ্কা একটু দেখা দিয়েছিল। তবে ভোটাররা সবাই দলমত নির্বিশেষে সংঘাত এড়িয়ে ভোট দিচ্ছেন। এমন চিত্র দেখলে যে কারো ভাল লাগবে।

বিএনপি দলীয় প্রার্থী মো. কবির হোসেন জানান, ‘ভোট দেবেন ভোটাররা। ভোটের জনসংযোগ শেষ। এখন ভোটাররা ভোট দিচ্ছেন। আমরা প্রার্থীরা সবাই ভাই ভাই। ভোটের জন্য ভাই ভাই সংঘাতে জড়াতে পারি না।’

একই তথ্য দিলেন ঘোরামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্য দেলওয়ার। তিনি জানান, এই এলাকায় ভোট খুব সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে। তবে এলাকার রাস্তাঘাট খুবই খারাপ। কাল (সোমবার) ভোটের বাক্স আনার সময় অনেক পথ হেঁটে আসতে হয়েছে।

প্রিজাইডিং অফিসার এসএম তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, এই ভোট কেন্দ্রে ভোটারের সংখ্যা ৮৩৪ জন। তার মধ্যে নারী ৩৮৮, পুরুষ ৪৪৬ জন। ভোট সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার ১৪টি ইউপির মধ্যে ১০টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ইউনিয়নগুলো হচ্ছে: বালুচর, বাসাইল, বয়রাগাদি, ইছাপুরা, জৈনসার, কোলা, লতুব্দি, মধ্যপাড়া, মালখানগর ও রসুনিয়া।

জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, ১০টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মোট প্রার্থী ৬৩ জন এবং ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ২০ হাজার ৮৫৪ জন।

অবশিষ্ট চারটি ইউনিয়ন চিত্রকোট, শেখরনগর, কেয়াইন, রাজানগরে আগামী ৪ জুন ভোটগ্রহণ হবে। আগামী ২৬ জুন পর্যন্ত জেলার ৬৭ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।