মেইন ম্যেনু

বিচ্ছেদ প্রসঙ্গে গণমাধ্যম কর্মীদের এড়িয়ে গেলেন কারিশমা

আমির খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয়, মাধুরী দীক্ষিতের সঙ্গে নাচের দৃশ্যে অংশ নিয়ে কারিশমা কাপুর বুঝিয়েছিলেন তিনিও কম যান না।কারিশমা কাপুর বলিউডে তাঁর শুরুটা করেছিলেন অসাধারণ।কিন্তু দাম্পত্য-সংকটের পর সন্তান আর ঘরের চার দেয়ালের মাঝেই দীর্ঘদিন নিজেকে আটকে রেখেছেন এই অভিনেত্রী।

সম্প্রতি কারিশমা কাপুরকে তাঁর বিবাহবিচ্ছেদ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করেছিলেন গণমাধ্যমের কর্মীরা। বুদ্ধিমতী কারিশমা চমৎকারভাবে এ প্রসঙ্গ এড়িয়ে গিয়ে জানিয়েছেন, ইদানীং তিনি খুব কমই ঘর ছেড়ে বাইরে বের হন। তাঁর কাছে ঘরই বড়।

দিনকয়েক আগে ‘ফেমিনা বিউটি অ্যাওয়ার্ড’-এর অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন কারিশমা কাপুর। সেখানেই সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা তাঁর কাছে বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে প্রশ্ন রাখেন। তাঁদের প্রশ্ন শেষ হওয়ার আগেই কারিশমা বলে ওঠেন, ‘কোনো মন্তব্য করব না। ধন্যবাদ।’

এর আগে বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম কারিশমা কাপুর ও তাঁর স্বামী সঞ্জয় কাপুরের বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে প্রতিবেদন ছেপেছিল। প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল যে সঞ্জয় বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আবেদন করেছেন। সঞ্জয়ের অভিযোগ কারিশমা শুধু স্ত্রী হিসেবেই নয়, মা হিসেবেও ব্যর্থ। এ ছাড়া সঞ্জয় আরও জানিয়েছেন যে কেবল টাকার জন্যই কারিশমা কাপুর তাঁকে বিয়ে করেছিলেন।

যা-হোক, এসব বিষয়ে কোনো মন্তব্য না করলেও কারিশমা কাপুর তাঁর বর্তমান জীবন সম্পর্কে বলেছেন, ‘আমি খুব হিসাব করেই ঘরের বাইরে যাই। আমার কাছে পরিবার, সন্তান খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমি ঘরে থেকেই অনেক সুখী।’

সঞ্জয় কিংবা বিবাহবিচ্ছেদের প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য না করে এই অভিনেত্রী সংবাদমাধ্যমের কর্মীদের বলেন, ‘আপনারা হয়তো প্রশ্ন করবেন যে আমি নতুন কোনো ছবি করছি কি না? কিন্তু আমি এই মুহূর্তে কোনো ছবি করতে প্রস্তুত নই। যখন আমি মনে করব সময় হয়েছে, তখন করব।’

কারিশমা কাপুরের বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই যে গুজবের ডালপালা ছড়িয়েছে, এরই পরিপ্রেক্ষিতে সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা তাঁর কাছে এ বিষয়ে জানতে চেয়েছিলেন। আর কারিশমা কাপুরও চমৎকারভাবে প্রসঙ্গ এড়িয়ে তাঁর বর্তমান জীবন, চলচ্চিত্র নিয়ে ভাবনা, সন্তান ও সংসার—এসব প্রসঙ্গে কথা বলেছেন।

সর্বশেষ কারিশমা কাপুরকে দেখা গিয়েছিল ২০১২ সালের ‘ডেঞ্জারাস ইশ্‌ক’ ছবিতে।