মেইন ম্যেনু

বিদেশি হত্যা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে?

বিশ্ব দরবারে দেশের ভাবমূর্তি ও অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা হুমকির মুখে বলে মনে করেন নিরাপত্তা বিশ্লেষক ব্রিগেডিয়ার (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন ।

তার ভাষ্য, গত কয়েকদিনের ব্যবধানে দেশের অভ্যন্তরে দুই বিদেশিকে হত্যার ঘটনায় উদ্বেগ বেড়েছে। আজ এক খ্রিস্টান ধর্ম যাজককে হত্যা চেষ্টার ঘটনা আরও উদ্বেগের।

সোমবার বিকালে মুঠোফোনে জানতে চাইলে সাবেক নির্বাচন কমিশনার ও নিরাপত্তা বিশ্লেষক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘দেশের অভ্যন্তরে দুই বিদেশি হত্যার ঘটনায় বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তাও হুমকির মুখে পড়েছে।’

তিনি বলেন, ‘শুধু তাই নয়, ব্যবসা বাণিজ্যে এর ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে এবং পড়বে। অনেক বিদেশি ব্যবসা বন্ধ করে দিচ্ছে। তারা দেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছে। এসব কিছু আমাদের উদ্বিগ্ন করে তোলে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের নিরাপত্তা জোরদার এবং এই ধরনের সমস্যা সমাধানে দরকার জাতীয় ঐক্যমত। কিন্তু আমাদের সমাজে বিভাজন স্পষ্ট। বিভাজনের কারণে কোনো বিষয়ে কনসেনসাসে পৌঁছানো যায় না। এ কারণে বিরাজমান সমস্যা থেকে উত্তরণ খুব কঠিন।’

সাবেক এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘দুই বিদেশি হত্যার ঘটনার সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দোষিরা যদি আইনের আওতায় আসে তাহলে কিছু স্বস্তি পাওয়া যাবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশের মানুষ বিভাজনের রাজনীতিতে আবদ্ধ। খুব সহজে এই সমস্যা থেকে উত্তরণ ঘটবে বলে মনে হয় না।’

তাহলে দেশ কোন দিকে যাচ্ছে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দেশ কোনো দিকে যাচ্ছে এনিয়ে তো মন্তব্য করা কঠিন। আমি তো কোনো কূলকিনারা দেখছি না।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘পুরো বিষয়টিই আমাদের দেশে হঠাৎ করেই মাথা চাড়া দিচ্ছে। এটি নতুন এক ধরনের হত্যাকাণ্ড। আগে আমাদের দেশে ছিল না। এটি রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই হচ্ছে বলে আামার কাছে পরিষ্কার। তবে এই রাজনীতিটা দুধরনের। একটা হচ্ছে জঙ্গিবাদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য। আরেকটি হচ্ছে দেশের ভেতরে রাজনৈতিক পট পরিবর্তন। এখন এটি কোন ধরনের রাজনীতি সেটাই বোঝার বিষয়।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দুই বিদেশির সঙ্গে তো কারো ব্যক্তিগত শত্রুতা আছে বলে আমার মনে হয় না। তাদের সঙ্গে টাকা পয়সা সংক্রান্তও কোনো বিষয় নেই বলে আমার কাছে প্রতীয়মান হয়েছে। সুতরাং এরমধ্যে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য যে আছে এটা পরিষ্কার।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে কারা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সেটা তদন্তের পর হয়তো আমরা জানতে পারবো। নতুন এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দেশের ওপর দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব পড়বে। ব্যবসার ওপর এর প্রভাব বেশি পড়বে বলে আমার কাছে মনে হয়।’ ঢাকাটাইমস