মেইন ম্যেনু

বিধ্বস্ত রুশ বিমানের কেউ বেঁচে নেই

কৃষ্ণসাগরে বিধ্বস্ত রাশিয়ার সামরিক বিমানের কোনো আরোহীই বেঁচে নেই। রোববার দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

রুশ বার্তা সংস্থা আরআইএ নভোস্তি জানিয়েছে, মন্ত্রণালয়ের পাঠানো ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ টিইউ-১৫৪ বিমানটির বিধ্বস্তের স্থান চিহ্নিত করা হয়েছে। আরোহীদের কেউ বেঁচে নেই।’

রোববার ভোর ৫টা ২৫ মিনিটে সোচি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের ২০ মিনিট পর কৃষ্ণ সাগরে রাশিয়ার জলসীমায় থাকা অবস্থায় বিমানটি রাডার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়। বিমানটিতে আটজন সেনা সদস্য, মিলিটারি ব্যান্ড দল অ্যাকেজান্দ্রভের ৬৪ জন সদস্য , নয়জন সাংবাদিক, দুইজন বেসামরিক কর্মকর্তা ও আটজন ক্রু ছিল। ছিলেন। অ্যাকেজান্দ্রভের সদস্যরা খ্রিষ্টিয় নতুন বছর উপলক্ষে সিরিয়ায় অবস্থানরত সেনাদের মনোরঞ্জনের জন্য যাচ্ছিলেন।

আরআইএ নভোস্তি রুশ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এক সদস্যের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ১০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেজর জেনারেল ইগর কোনাসেঙ্কভ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘বিমানটির কোনো আরোহীই আর বেঁচে নেই। বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার স্থান চিহ্নিত হয়েছে। কোনো জীবিত ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া যায়নি।’

তিনি জানিয়েছেন, সোচি শহর উপকূলের দেড় কিলোমিটার দূরে এবং সাগরের ৭০ মিটার গভীরে বিমানের ধ্বংসাবশেষের সন্ধান মিলেছে। উদ্ধার তৎপরতা চলছে। চারটি জাহাজ, চারটি হেলিকপ্টার, একটি বিমান ও একটি ড্রোন এ কাজে মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া মিনি সাবমেরিনের মাধ্যমে শতাধিক ডুবুরি ঘটনাস্থলে কাজ করে যাচ্ছে।

টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ২৬ ডিসেম্বরকে জাতীয় শোক দিবস হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন।