মেইন ম্যেনু

বিনা খরচে সৌদিতে পুরুষকর্মী পাঠানো শুরু

গৃহস্থালীর কাজের জন্য শর্তসাপেক্ষে বিনা খরচে পুরুষকর্মী নেয়া শুরু করেছে বৃহৎ শ্রমবাজার সৌদি আরব। এই প্রক্রিয়ায় ইতোমধ্যে কিশোরগঞ্জের মহসিন হোসেন মিয়াকে গতকাল বুধবার দেশটিতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া দুইশ’র বেশি কর্মী নেয়ার কথা বলেছে দেশটির প্রাইভেট এজেন্সিগুলো। বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয় সূত্র কর্মী প্রেরণের বিষয়টি নিশ্চিত করে।

সূত্রটি জানায়, সৌদি আরবে এতদিন গৃহস্থালীর নারীকর্মী পাঠানো হতো। বুধবার থেকে বিনা খরচে পুরুষ কর্মী পাঠানো শুরু হয়েছে। এখন থেকে সৌদি আরবে গৃহস্থালীর কাজে দুই জন নারীকর্মীর পাশাপাশি এক জন পুরুষ নিকটাত্মীয় (বাবা, স্বামী, ছেলে ও আপন ভাই) ও এক জন পুরুষ অনাত্মীয় (রক্ষের সম্পর্ক নেই এমন) যেতে পারবে।

এই নিয়মের আওতায় মহসিন হোসেন মিয়াকে সৌদি আরবে পাঠিয়েছে পেন্টাগন ইন্টারন্যাশনাল নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির মালিক সাদাত হোসাইন বলেন, প্রতি দুই জন নারীকর্মীর বিপরীতে একজন নিকটাত্মীয় ও একজন অনাত্মীয় বিনা খরচে যাওয়ার কোঠা চালু হয়েছে। সেই কোঠাতে গতকাল আমরা একজন পুরুষকে গৃহস্থালী কাজে বিনা খরচে সৌদি আরব পাঠিয়েছি। এভাবে আরো ২০০ জন কর্মী নেয়ার ব্যাপারে সেখানকার বেসরকারি এজেন্সিগুলোর সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, বিনা খরচে পাঠানো এসব পুরুষ কর্মী দুই বছর সৌদিতে কাজ করতে পারবেন। তিনি যদি আরো বেশি সময় থাকতে চান তাহলে ভিসা নবায়ন করতে পারবেন অথবা তার নিয়োগকর্তাও (কফিল) নবায়ন করে দিতে পারবেন। আর বাজার অনুযায়ীই তার বেতন নির্ধারণ করা হবে।