মেইন ম্যেনু

বিবর্ণ স্পেনের ‘ভাগ্যপ্রসূত’ জয়

ইউরো বাছাই পর্বের ম্যাচে মেসিডোনিয়ার মতো দুর্বল দলকে পেয়েও নিজেদের শক্তিমত্তা প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হয়ে স্পেন। মঙ্গলবার প্রতিপক্ষের মাঠে মেসিডোনিয়ার গোলরক্ষকের ভুলে কোনো রকম ১-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে স্প্যানিশরা। এই জয়ের ফলে ফ্রান্সে আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য ইউরো কাপের চূড়ান্ত পর্বে যাওয়ার পথে আরেক ধাপ এগিয়ে গেল দেল বস্কের দল।

মঙ্গলবার স্কোপজে অনুষ্ঠিত ম্যাচের শুরু থেকেই মাঠে আধিপত্য বিস্তার করে স্পেন। খেলার শুরুতেই প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের ভুলে এগিয়ে যায় গত দুই আসরের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা।

অষ্টম মিনিটে হুয়ান মাতার ক্রস স্বাগতিক গোলরক্ষক টম পেকোভস্কিকে বোকা বানিয়ে জালে আশ্রয় নিলে উল্লাসে মাতে স্প্যানিশ শিবির। মাতা’র শট দিক পরিবর্তন করে স্বাগতিক গোলরক্ষকের মাথায় ওপর দিয়ে জালে আশ্রয় নিলে কিছুর করার ছিল না তার।

প্রথমার্ধে শত চেষ্টা করেও আর গোলের দেখা পায়নি স্পেন। এমনকি দ্বিতীয়ার্ধেও গোল করতে ব্যর্থ হয় গত দুই আসরের ইউরো চ্যাম্পিয়নরা। আগামী ৯ অক্টোবর লুক্সেমবার্গের বিপক্ষে জিততে পারলেই ইউরো চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত হবে স্প্যানিশদের।

স্প্যানিশ কোচ ডেল বস্ক দলের এই জয়কে ভাগ্যপ্রসূত বলে উল্লেখ করেছেন, ‘আমরা আজ (মঙ্গলবার) ভালো খেলিনি। ভাগ্যের সহায়তায় আমরা জয় পেয়েছি। আমরা ভাগ্যের সহায়তায় একটি গোল পেয়েছি। এক গোল করার পরই যেন আমরা থেমে গেছি। মাঠে আমরা অনেক ধীর খেলেছি।’

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে নিজের সময়টা ভালো না গেলেও ২০১০ বিশ্বকাপজয়ী এবং ২০০৮ ও ২০১২ ইউরো কাপ জয়ী গোলরক্ষক ইকার ক্যাসিয়াসের পরিবর্তে এদিন ডিভিড ডি গিয়াকেই মাঠে নামান দেল বস্ক। ফলে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের হয়তো ইতি ঘটতে যাচ্ছে এই চ্যাম্পিয়ন গোলরক্ষকের।

এই জয়ের ফলে বাছাই পর্বের ১০ ম্যাচের আটটি শেষে সর্বোচ্চ ২১ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের শীর্ষে রয়েছে দেল বস্কের স্পেন। মঙ্গলবার দিনের অপর ম্যাচে ইউক্রেনের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করায় দুইয়ে নেমে গেছে স্লোভাকিয়া। স্লোভাকদের পয়েন্ট ১৯। সমান ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে ইউক্রেন।

ইউরো বাছাই পর্বের নয়টি গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স-আপ এবং একটি সেরা তৃতীয় দল আয়োজক দেশ ফ্রান্সের সঙ্গে সরাসরি চূড়ান্ত পর্বে অংশগ্রহণ করবে। আর বাকি আটটি তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দল নিজেদের মধ্যে প্লে-অফ খেলে শেষ চারটি দল হিসেবে চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে।

প্রসঙ্গত, ২০০৮ ও ২০১২ সালে টানা দুবার ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতে রেকর্ড গড়েছে স্পেন। ১৯৬০ সালে এই প্রতিযোগিতা শুরু হওয়ার পর আর কোনো দেশ টানা দুবার শিরোপা জিততে পারেনি। তাছাড়া জার্মানির সঙ্গে যৌথভাবে সর্বাধিক তিনবার ইউরো কাপের শিরোপা জয় করা স্প্যানিশরা এবার সবাইকে ছাড়িয়ে যাওয়ার লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবে।