মেইন ম্যেনু

বিবাহিত জীবনে পর্ন দেখলে কী ভয়ংকর ঘটনা ঘটে জানলে চমকে উঠবেন…

নীল ছবির নেশায় বুঁদ, ৮ থেকে ৮০! সুযোগ পেলেই একটু নীল ছবি, অনেকটা শিহরণ, অনেকটা উত্তেজনা, অনেকটা আনন্দ উপভোগ করছে কম বয়সী থেকে মধ্য বয়সী, নারী থেকে পুরুষ সবাই। ‘সভ্য’ মানব অজান্তেই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে নীল ছবির আসক্তিতে। দিনের পর দিন বাড়ছে পর্নের চাহিদাও।

কতটা ক্ষতিকারক এই নীল ছবি? সমাজ, সম্পর্ক এমনকি শরীর-কীভাবে ক্ষতি করছে নীল ছবি? গবনেষণা বলছে বিবাহিত সম্পর্কে থাকা নর ও নারীর পর্ন দেখার প্রবণতাতেই নাকি লুকিয়ে আছে তাঁদের সম্পর্কের গভীরতা! নতুন এক গবেষণার দাবি একটা বৈবাহিক সম্পর্ককে নষ্ট করে দেওয়ার জন্য পর্ন ছবিই যথেষ্ট বড় কারণ হয়ে উঠতে পারে।

নতুন গবেষোণায় দাবি করা হয়েছে, বিয়ের পর পর্ন দেখেন এমন সম্পর্ক বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই বিচ্ছেদের পথে এগিয়েছে। আর বৈবাহিক সম্পর্কের বিচ্ছেদে পর্ন যাঁদের ওপর সবথেকে বেশি প্রভাব ফেলে, তাঁরা হলেন নারী। আমেরিকার ওকলাহোমা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার পর সমাজবিদরা দাবি করেছেন যে নারীরা দিনে ৩ বারের থেকেও বেশি নীল ছবি দেখেন তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদের ঝোঁক বেশি দেখা যায়। তাঁদের আরও দাবি পর্ন বিবাহিত নারী ও পুরুষের শরীরে প্রভাব বিস্তার করে এবং তাঁদের স্বভাবজাত যৌন আচরণেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।