মেইন ম্যেনু

বিমান দূর্ঘটনায় আমাকে মারতে চেয়েছিল বিজেপি : মমতা ব্যানার্জী

নোট বাতিল ইস্যুতে আবারও ভারতের রাষ্ট্রপতির দ্বারস্থ হলো মমতা ব্যানার্জীর তৃণমূল কংগ্রেস৷ মোদি সরকারের নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের ফলে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা রীতিমতো সুপার এমার্জেন্সি অবস্থার দিকে ঠেলে দিচ্ছে দেশকে, এমন অভিযোগ করেই বুধবার রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর কাছে হাজির হলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা৷ খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

নোট বাতিলকে কেন্দ্র করে ভারতের বিরোধী দলগুলি মোদি বিরোধিতায় সোচ্চার হয়েছে৷ প্রথম থেকেই তৃণমূল কংগ্রেস গোটা বিষয়টিতে নিজেদের স্পষ্ট অবস্থান বজায় রেখেছে৷ নোট বাতিল আম আদমিকে কতটা সমস্যায় ফেলেছে, মূলত এই ইস্যুতেই রাজধানীর পথে নেমে কেন্দ্রের বিরোধিতা করেছে তৃণমূল৷

এদিনও রাষ্ট্রপতির কাছে সেই একই অভিযোগ করেছে দল৷ ইতিমধ্যেই নোট বাতিলের বলি হয়েছেন ১২০ জন৷ পাশাপাশি নিম্নবিত্ত এবং মধ্যবিত্ত মানুষও নগদ টাকার অভাবে সমস্যায় পড়ছেন৷ নোট বাতিল মানুষের কর্মসংস্থান কেড়ে নিচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয় তৃণমূলের তরফে৷

বুধবার এক পদযাত্রায় অংশ নিয়ে রাষ্ট্রপতি ভবনে যান তৃণমূল সাংসদরা৷ সেখানে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে স্মারকলিপি জমা দেন তারা৷ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেন, “দেশের এই সুপার এমার্জেন্সি অবস্থা দূর করতে রাষ্ট্রপতির হস্তক্ষেপ দাবি করি৷”

প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিন আগেই এক বক্তৃতায় রাষ্ট্রপতি নোট বাতিল সম্পর্কে মুখ খুলেছিলেন৷ নোট বাতিল দেশের অর্থনীতিকে কিছুটা পিছিয়ে দেবে বলেই মন্তব্য করেছিলেন তিনি৷ আর রাষ্ট্রপতির এই বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী৷

দিল্লিতে একদিকে যখন আন্দোলন অব্যাহত, অন্যদিকে কলকাতাতেও তৃণমূলের বিক্ষোভ অব্যাহত৷ বুধবার আরবিআইয়ের সামনেও হাজির হয় তৃণমূলের সমর্থকরা৷ রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার সামনে তৃণমূলের তরফ থেকে যে ধরনা কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে, তারই তৃতীয় দিনে আরবিআইয়ের সামনে হাজির হলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী৷ এদিন আবারও তিনি কেন্দ্রের প্রতিহিংসামূলক রাজনীতি নিয়ে মুখ খোলেন৷ উত্তরপ্রদেশে কিছু আগে মমতাকে বহনকারী বিমান মাঝ আকাশে রহস্যজনক চক্কর দেওয়াকে বিজেপির হাত আছে দাবী করে মমতার দাবী, বিজেপি তাকে বিমান দুর্ঘটনায় মারতে চেয়েছিল।

পাশাপাশি, রোজভ্যালি চিটফান্ড কাণ্ডে তৃণমূল সাংসদদের গ্রেপ্তারিরও তীব্র নিন্দা করেন তিনি৷ চিটফান্ড কাণ্ডে তৃণমূল সাংসদদের গ্রেপ্তারের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সিবিআই প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের অধীনে৷” এর পাশাপাশি মমতার আরও দাবি তৃণমূলের আমলে রাজ্যে কোনও চিটফান্ড তৈরি হয়নি৷ বামফ্রন্ট যাবতীয় চিটফান্ডকে আস্কারা দিয়েছে বলেও অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর৷

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী আরও দাবি করেন চিটফান্ডগুলিকে বাজারে চলার অনুমতি দিয়েছে আরবিআই৷ আরবিআই মত দিয়েছে বলেই চিটফান্ডগুলির রমরমা বৃদ্ধি পেয়েছে৷ নোট বাতিলের বিরোধিতা করায় মুখ্যমন্ত্রীকে হত্যার চক্রান্ত করা হয়েছিল বলেও মন্তব্য করেন তিনি৷ নোট বাতিলের বিরোধিতা করার এই সিদ্ধান্ত জারি থাকবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী৷