মেইন ম্যেনু

বিয়ের রাতে শারীরিক মিলন কতটা সুখকর!

এখন যদি কেউ আপনাকে বলে যে একটা অজানা, অচেনা লোকের সঙ্গে এক বিছানায় রাত কাটাতে হবে আপনাকে৷ কী অস্বস্তি লাগবে না আপনার? কিন্তু ভাবুন তো শুধু রাত কাটানোই নয়, একটা সময় ছিল যখন এক সম্পূর্ণ অচেনা মানুষের সঙ্গে বিয়ে দেওয়া হত আপনারই বয়সের কোনও মেয়ে বা মহিলাকে৷ সেই সম্পূর্ণ ধাঁধাময় মানুষটির সঙ্গে বিয়ের রাতে মিলিতও হতো তাঁরা৷

কিন্তু বর্তমানে সময় অনেক পালটে গিয়েছে, অ্যারেঞ্জ ম্যারেজের ফাঁদ থেকে মেয়েরা আজ অনেকটাই মুক্ত৷ কিন্তু তবু আজও আমাদের এই সমাজেই অনেক উঁচু-নীচু জাতপাতের বাঁধাধরা ছক আছে যেখানে আজও মনে করা হয় যে, ১৮ বছর মানেই একটি মেয়ের বিয়ের বয়স হয়ে গিয়েছে৷ ফলে দাও তাকে বাপের কাকার বয়সী একজনের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে৷ আর যদি পাত্র সরকারি চাকুরে হয় তবে তো কথাই নেই৷

কিন্ত এই সবকিছুর উর্ধ্বে যে কথাটা বলার জন্য এত ভনিতা৷ তা হল জানেন কী কতজন নবদম্পতি বিয়ের রাতেই শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হন? ভারতীয় বেশ কিছু গণমাধ্যম এমন খবর প্রকাশ করেছে।

সমীক্ষা বলছে ৬৩ শতাংশ দম্পতি যারা অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ করেন তাঁরা বিয়ের রাতেই যৌন সংগমে লিপ্ত হন৷ কিন্তু অবাক হবেন এটা জেনে যে, সেই দম্পতিদের মধ্যে বেশির ভাগই বিয়ের আগে পরস্পরকে চেনেন না৷ কোনও কোনও ক্ষেত্রে বিয়ের সময়েই হয় প্রথম দেখা৷

তবে ‘বিয়ের প্রথম রাতেই ছক্কা হাঁকানো’ কী ভুল৷ সমীক্ষকরা বলছেন, সবার জন্য অবশ্যই ভুল নয়৷ তবে এটা ভুল হতে পারে দু’ধরনের মানুষদের জন্য, এক যাদের সেক্স সম্পর্কে কোনও প্রকারের ধারনা নেই৷ আর দুই, যারা বিপরীত দিকের মানুষটির কাছে বেশি কিছু এক্সপেক্ট করেন৷

তাঁরা আরও জানিয়েছেন, বিয়েকে কোনও মতেই হালকা ভাবে নেওয়া উচিত নয়৷ কারণ এই প্রক্রিয়াতে আপনি কেবল শারীরিক ভাবেই কোনও একজনের সঙ্গে মিলিত হচ্ছেন না, মানসিক মিলনও ঘটছে৷ শরীর না একটা মাধ্যম মাত্র, যার সঙ্গে যোগ থাকে মনের৷