মেইন ম্যেনু

বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা নয়া ল্যাপটপে দানবীয় শক্তি!

অনেকেই বড় বাজেটের পাতলা ল্যাপটপ খুঁজে থাকেন, যা সহজেই বহন করা যায়। সম্প্রতি এইচপি দুটো ল্যাপটপ এনেছে যা কি-না অদ্ভুত রকমের স্লিম।

ল্যাপটপ সাধারণত খুব বেশি পাতলা হলে উচ্চমানের পারফরম্যান্স দেয়া যায় না। কিন্তু এইচপি এতে অনায়াসেই কোর আই৫ এবং কোর আই৭ প্রসেসর দিয়ে দিয়েছে।

১২ ইঞ্চি পর্দার ‘এলিটবুক ফোলিও জি১’ এসেছে দুই ধরনের পর্দা নিয়ে। একটি ১০৮০ এবং অপরটি ৪কে টাচ প্রযুক্তি নিয়ে। কিন্তু আলোচনার বিষয় ১৩ ইঞ্চি পর্দার ‘স্পেকট্রা’কে নিয়ে। এতে আছে ননটাচ ১৯২০x১০৮০ স্ত্রিন।

নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জানায়, স্পেকট্রা সংস্করণের সবচেয়ে শক্তিশালী ফিচারে সমন্বয় ঘটেছে এতে। এটাই বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা পূর্ণশক্তির ল্যাপটপ। এটি মাত্র ১০.৪ মিলিমিটার পাতলা। ভেতরে আছে ইন্টেল কোর আই৫ এবং কোর আই৭ প্রসেসর।

কোর আই৭-৬৫০০ইউ প্রসেসর, ৮ জিবি র‌্যাম এবং ২৫৬জিবি এসএসডি মেমোরিসহ এর দাম পড়বে ১২৪৯ ডলার। ব্রিটেনের বাজারে কোর আই৫-এর দাম ধরা হয়েছে ১১৬৯ ডলার।

বিভিন্ন কনফিগারেশনে একে বেছে নেয়া যাবে। দামের শুরু ১১৪৯ ডলার থেকে। তবে যে মডেলটিই বেছে নেন না কেন, ইউএসবি-সি, মাল্টিপারপাস ডেটা, পাওয়ার এবং অ্যাকসেরসরিজ কানেকটর মিলবে।

অ্যাপলের ১২ ইঞ্চি ম্যাকবুক এবং সাম্প্রতিক রেজর ব্লেড স্টিলথ উভয়ের বড়ি ১৩ মিলিমিটার পাতলা। এদিকে ১৩ ইঞ্চির ডেল এক্সপিএস ১৩-এর বডি ১৫ মিলিমিটার।

২.৪ পাউন্ড ওজন নিয়ে এটি বেশ হালকাও বটে। এর ডিজাইন নজরকাড়া। তবে এর মাঝে কোর আই সিরিজের প্রসেসর দেয়া সহজ কথা নয়। এইচপি ল্যাপটপের চেসিস থেকে স্থান বাঁচিয়েছে। টাচ এবং অন্যান্য ফিচার জুড়ে দিয়েছে চমৎকারভাবে।

এর রং সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করা। এর কিনারা উজ্জ্বল স্বর্ণালী রংয়ে মোড়া। কিনারাটি তৈরি হয়েছে অ্যালুমিনিয়ামে।

একেবারে পাতলা ও হালকা ল্যাপটপটিতে দেয়া হয়েছে সেরা মানের কিবোর্ড। ১৩ ইঞ্চি ল্যাপটপের চেয়ে কিছুটা সরু মনে হবে কিবোর্ডটাকে। এটি গুণগত মান ও পারফরম্যান্সে অতুলনীয়।

পর্দাটি আইপিএস ফুল এইচডি। অর্থাৎ মারাত্মক কোণ থেকেও স্পষ্ট দেখা যাবে। এইচপি জানায়, তারা যতটা সম্ভব লিড লাইটকে পাতলা রাখার চেষ্টা করেছে। এর পর্দাজুড়ে গরিলা গ্লাস দেয়া।

সাধারণত পাতলা ল্যাপটপে মধ্যম শক্তির কোর এম লাইনের প্রসেসর দেয়া হয়। অ্যাপলের ১২ ইঞ্চি ম্যাকবুক এবং স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি ট্যাবপ্রো এস-এ এই প্রসেসরের ব্যবহার ঘটেছে। এর শক্তিশালী কুলিং পদ্ধতি ল্যাপটপকে যথেষ্ট শীতল রাখে।

বেশ ভালো ব্যাকআপ দেয় এর ব্যাটারিও। সব মিলিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা ল্যাপটপ। এই পাতলা ল্যাপটপ থেকে এর চেয়ে ভালো মান আর আশা করা যায় না। সূত্র : সি নেট