মেইন ম্যেনু

বিসিবি আমার কিছুই করতে পারবে না : শহীদ

ক্রিকেটার শহীদের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী ফারজানা আকতার বাংলাদেশে ক্রিকেট বোর্ডে (বিসিবি) লিখিত অভিযোগ দিতে আসলে শহীদ তাকে (ফারজানা) ফোন দিয়ে বোর্ডে যেতে নিষেধ করেন। এ সময় শহীদ বলেন, ‘বিসিবি আমার কিছুই করতে পারবে না। আমি এখানে খেলতে আসছি, তারা আমার খেলা দেখবে। পারিবারিক কোনো বিষয় তারা দেখবে না।’

আজ (রোববার) বিসিবিতে জাতীয় দলের ক্রিকেটার শহীদের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী ফারজানা আক্তার নির্যাতনের লিখিত অভিযোগ করতে আসেন। অভিযোগ জমা দেয়ার আগে লাউঞ্জে বসে থাকার সময় ফারজানাকে ফোন দেন শহীদ। এ সময় দুই দফায় তাদের মাঝে প্রায় ২০ মিনিটের মতো কথা হয়। শহীদ বারবার তার স্ত্রীকে বোর্ডে অভিযোগ দিতে মানা করেন এবং চলে যেতে বলেন। চলে না গেলে আর কোনো দিন সংসার করবেন না বলেও স্ত্রীকে হুমকি দেন।

জবাবে ফারজানা বলেন, এসে নিয়ে যেতে। ব্যস্ততার কথা বলে শহীদ ফোন রেখে দেন প্রথম দফায়। পরে আবারও ফোন দিয়ে শহীদ ফারজানাকে চলে যেতে বলেন।

এদিকে নির্যাতনের ব্যাপারে ফারজানা আকতার বলেন, সে (শহীদ) আমাকে ৫-১০ লাখ টাকা নিয়ে চলে যেতে বলেছে। ছেলে আরাফকে (৩) নিয়ে অস্ট্রেলিয়া চলে যেতে চেয়েছিল। এমনকি আমার মেয়ে যখন পেটে তখন লাথি মেরে ওকে নষ্ট করে ফেলতে চেয়েছিল। শহীদের বোন ফারজানাকে বাড়িতে শুধু বাচ্চাদের দেখাশুনার জন্য কাজের মেয়ের মতো রাখার অনুরোধ করলেও শহীদ তাতে রাজি হয়নি।

এদিকে গত ২৩ জুন তাকে শ্বশুরবাড়ি থেকে বে করে দেয়া হয়েছে বলেও সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন ফারজানা। তিনি বলেন, দুই সন্তান নিয়ে তিনি সরাসরি মুন্সিগঞ্জের বাবার বাড়ি থেকে এখানে এসেছেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার পর বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী ডেকে নিয়ে শহীদের স্ত্রী ফারজানার সঙ্গে আলোচনা করেন। বিসিবির কাছে অভিযোগ জমা দিয়ে বের হয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, বিসিবি আশ্বাস দিয়েছে সমস্যার সমাধান করবে। ততদিন বিসিবির সঙ্গে তাকে যোগাযোগ রাখতে বলেছেন। তবে বিসিবি সমস্যার সমাধান করতে না পারলে মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন শহীদের স্ত্রী ফারজানা আক্তার।

২০১১ সালের ২৪ জুন ফারজানা-শহীদ বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের পর থেকে ফারজানা তার শ্বশুরবাড়ি নারায়ণগঞ্জের তল্লায় বসবাস করছিলেন। প্রথম তিন বছর তাদের ভালোই কাটছিল। জাতীয় দলে খেলা শুরু করার পর থেকেই বদলে যেতে শুরু করেন। বিভিন্ন মেয়েদের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সর্বশেষ ঢাকায় বসবাসরত এক মেয়ের সঙ্গে নিজের স্ত্রী ও সন্তানের কথা গোপন রেখে সম্পর্কে জড়ান জাতীয় দলের সাবেক এই পেসার।

উল্লেখ্য, শহীদ বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে পাঁচটি টেস্ট ও একটি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। গত নভেম্বরে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলেন শহীদ। ইনজুরিতে পড়ায় এরপর তার মাঠে ফেরা হয়নি। হাঁটুতে অস্ত্রোপচারের পর পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে আছেন ২৮ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার।জাগো নিউজ।






মন্তব্য চালু নেই