মেইন ম্যেনু

বিয়ের আসর থেকে অস্ত্রের মুখে বরকে প্রেমিকার অপহরণ

বিয়ের আসর থেকে প্রেমিক বরকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে গেছেন প্রেমিকা। এর পর থেকেই বরকে আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা বলে অভিযোগ করেছে বরের পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের কানপুরে।

মঙ্গলবার (১৬ মে) ঘটনার পর থেকে ওই প্রেমিকার কীর্তি নিয়ে চর্চা চলছে গোটা এলাকায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অপহৃত পাত্রের এখনো কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, অপহরণকারী তরুণী এবং বিয়ের পাত্র, দু’জনের মধ্যে আগে থেকেই সম্পর্ক ছিল। কোনো কারণে প্রেমিকের বিয়ে অন্যত্র ঠিক হয়ে যাওয়ায় প্রতিশোধ নিতে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন ওই প্রেমিকা।

পুলিশ জানিয়েছে, অপহৃত পাত্রের নাম অশোক যাদব। তিনি স্থানীয় একজন চিকিৎসকের ক্লিনিকে সহায়কের কাজ করতেন। ওই ক্লিনিকেই কর্মরত এক নারীকর্মীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল অশোকের। দু’জনেই আজীবন একসঙ্গে কাটানোর শপথ নিয়েছিলেন। কিন্তু ভবানীপুর গ্রামে অশোকের বিয়ে ঠিক হতেই দু’জনের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। বাগদান হয়ে যাওয়ার পরে প্রেমিকার এসএমএস, ফোনের জবাব দেয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন অশোক। আর এতেই চটে যান প্রেমিকা।

সোমবার গভীর রাতে বরযাত্রী নিয়ে মৌদাহাতে বিয়ে করতে যান অশোক। সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। হঠাৎ সেখানে হাজির হন ওই প্রেমিকা। তার সঙ্গে আরো বেশ কয়েকজন ছিল। রিভলবার হাতে সোজা নিজের প্রেমিকের সামনে চলে আসেন ওই তরুণী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই যুবককে তরুণী প্রশ্ন করেন, তাকে ভালোবাসলেও কেন অন্য মেয়েকে বিয়ে করছেন অশোক। এই সব যে তিনি বরদাস্ত করবেন না, তাও নিজের প্রেমিককে জানিয়ে দেন ওই তরুণী।

এর পরেই পাত্রকে বিয়ের আসর থেকে টানতে টানতে একটি গাড়িতে তুলে পালিয়ে যান ওই তরুণী। ঘটনার তদন্ত করতে আসে পুলিশ। যদিও পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, গোটা ঘটনাতেই পরিকল্পনামাফিক ঘটিয়েছে ওই প্রেমিক এবং তার প্রেমিকা।

মৌদাহা এলাকার পুলিশের ডিসিপি সংবাদমাধ্যমের কাছে দাবি করেছেন, নিজের ইচ্ছেতেই ওই তরুণীর সঙ্গে চলে গিয়েছেন অশোক। ওই যুবকের ভাই-সহ বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই