মেইন ম্যেনু

বিয়ের পিঁড়িতে ক্রিকেটার মোহাম্মদ শরীফ

বাইশ গজের ক্রিজে আগুন ঝরা বোলিংয়ে বাঘাবাঘা ব্যাটসম্যানের নাকানি-চুবানি খাইয়েছেন পেসার মোহাম্মদ শরীফ। গতিময় বোলিংয়ে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের উইকেট তুলে নিতে কখনো কার্পণ্য করেননি।

ইয়র্কার, ইনসুইং আর বাউন্স তিনের মিশেলে মোহাম্মদ শরীফ ছিলেন অনন্য। কিন্তু সেই শরীফ এখন সামলাচ্ছেন ফারজানা রিমার বাউন্স আর ইয়র্কার! ক্রিকেটাঙ্গনে ফারজানা রিমা পরিচিত কেউ নন। কিন্তু মাসখানেকের মধ্যেই পরিচিত হয়ে যাবেন।

আগামী সেপ্টেম্বরে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন একশটিরও বেশি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলা একমাত্র ক্রিকেটার মোহাম্মদ শরীফ। পাত্রী আর কেউ নন ফারজানা রিমা। সিটি কলেজ থেকে ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিংয়ে মাস্টার্স করেছেন রিমা।

সোনালি ব্যাংকের প্রাক্তন ম্যানেজার এ. এম. এইচ হায়দার-সায়িদা হায়দারের দ্বিতীয় মেয়ে ফারজানা রিমা। তিনভাই বোনের মধ্যে রিমা সবচেয়ে ছোট। ঢাকার নবাবপুরে বাড়ি হলেও এখন ধানমন্ডি ঝিগাতলার বাসিন্দা তারা।

বিয়ের খবর নিশ্চিত করেছেন মোহাম্মদ শরীফ নিজেই। মুঠোফোনে লন্ডন থেকে শরীফ বলেন, ‘হ্যাঁ। আগামী সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে আমাদের আকদ হবে। ডিসেম্বরে ইনশাআল্লাহ বিয়ের অনুষ্ঠান হবে। আমি দেশে ফেরার পর সব আয়োজন শুরু হবে।’

শরীফ আরো বলেন, ‘ফারজানা রিমার সঙ্গে আগের থেকে পরিচয় ছিল। আমার এক বড় ভাইয়ের শ্যালিকা রিমা। তবে আমার মা ‘ইয়েস কার্ড’ দেওয়ার পর আমি বিয়ের সিদ্ধান্ত নেই।’ ব্যক্তিগত কাজে লন্ডনে আছেন শরীফ।

সেপ্টেম্বরের ১ তারিখে দেশে ফেরার কথা তার। বাংলাদেশের হয়ে ১০ টেস্ট ও ৯ ওয়ানডে খেলা শরীফ এখনো খেলা চালিয়ে যাচ্ছেন। জাতীয় ক্রিকেট লিগের গত আসরে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে শততম ম্যাচটি খেলেন শরীফ। বাংলাদেশের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে একশটিরও বেশি ম্যাচ খেলার অনন্য রেকর্ডটি নারায়নগঞ্জের এই পেসারের দখলে।