মেইন ম্যেনু

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে রাতভর নদীর চরে গণধর্ষণ

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার ভাটপিয়ারী এলাকায় বিয়ের প্রলোভনে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কিশোরীকে (১৫) রাতভর গণধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে তার প্রেমিকের বিরুদ্ধে। গুরুতর আহতবস্থায় ওই কিশোরীকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার সদর উপজেলার ছোনগাছা ইউনিয়নের ভাটপিয়ারী যমুনা নদীর বালুচরে এ গণধষর্ণের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ভোরে স্থানীয়রা ধর্ষিত কিশোরীকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে বেলা ১১টার দিকে পুলিশ হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

ধর্ষিতা কিশোরীর বোন জামাই আব্দুল খালেক জানান, পার-পাচিল গ্রামের গুটু খাঁর ছেলে রাসেলের সঙ্গে তার শ্যালিকার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বুধবার রাত ৮টার দিকে রাসেল বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মোবাইল ফোনে তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। রাতভর পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি করলেও কোথায় পাওয়া যায়নি। ভোরে এলাকাবাসী ভাটপিয়ারী বালুর চর থেকে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

ধর্ষিতা কিশোরী জানায়, বিয়ের কথা বলে রাসেল তাকে ডেকে নিয়ে বালুচরে যায়। কিছুক্ষণ পরে তার আরও ৫ বন্ধুকে ফোন করে ডেকে নিয়ে আসে। তারপর ৬জন মিলে তার ওপর জোরপূর্বক পাশবিক নির্যাতন চালায়।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার উপ-পরিদর্শ (এসআই) নুরুল ইসলাম জানান, মেয়েটির ওপর ৬জন মিলে পাশবিক নির্যাতন করেছে। তার প্রেমিকসহ অন্যান্য অভিযুক্তকে ধরতে ওই এলাকায় পুলিশের অভিযান চলছে।

সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আকরামুজ্জামান জানান, মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সে কিছুটা সুস্থ রয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।