মেইন ম্যেনু

বিয়ের স্বাদ মেটেনি ৩৬ সন্তানের বাবার! (ভিডিওসহ)

৩৬ সন্তান নিয়ে সুখে আছেন এক ব্যক্তি। তিনি পাকিস্তানের নাগরিক। হাজি গুলজার খান ওয়াজির থাকেন দেশটির ওয়াজিরিস্তানে। তার রয়েছে তিন স্ত্রী। নাতি-নাতনিসহ পরিবারের সদস্য প্রায় ১০০ জন। বান্নু শহরে ১৭টি কক্ষ নিয়ে এই বিশাল পরিবারের আবাস। সম্প্রতি তিনি আবার বিয়ের পিঁড়িতে বসার চিন্তা করেছিলেন। বিয়ে করার জন্য টাকাও জমিয়েছিলেন। কিন্তু উত্তর ওয়াজিরিস্তানে তালেবান দমন করতে পাকিস্তান সেনাবাহিনী অভিযান চালালে সপরিবারে নিরাপদ স্থানে সরে যেতে হয় তহাকে। ফলে বিয়ে করা আর হয়ে উঠে না। ভাড়াবাবদ টাকাগুলো খরচ হয়ে যায়। এ জন্য তিনি মানসিকভাবে ভালো নেই।

গুলজার খান প্রথম বিয়ে করেছিলেন ১৭ বছর বয়সে। তার প্রথম স্ত্রীর বয়স ছিল ১৪ বছর। তিনি যে এলাকায় বাস করেন সেখানে বহু বিবাহ খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার। এর আট বছর পর তিনি দ্বিতীয় বিয়ে করেন। তৃতীয় বিয়েটি হয়েছে বেশ মর্মান্তিক ঘটনায়। তার ভাইয়ের সঙ্গে যে তরুণীর বিয়ে ঠিক হয়েছিল কিন্তু এর আগেই তার ভাই এক দুর্ঘটনায় মারা যান। তাই শেষমেষ ওই তরুণীকেই তিনি বিয়ে করেন। তার ছেলেরা অনেকে উপার্জনক্ষম। দুই ছেলে দুবাইয়ে গাড়িচালক। তারা পরিবারের জন্য সহায়তা করে থাকেন।

গুলজার বলেন, আমার ছেলেরা মাসে ৫০ হাজার রুপি (৫০০ ডলার) করে পাঠায়। তা দিয়েই সংসার চলে। তিন স্ত্রীর মধ্যে কোনো বিবাদ নেই বলে জানান তিনি। একই ছাদের নিচে বাস করে তারা। তবে কোন সন্তানের মা কে, তা শনাক্ত করতে তিনি হিমশিম খেয়ে যান বলে জানান। এ নিয়ে স্ত্রীদের সাথে মনোমালিন্যও হয়েছে তার। তিনি বলেন, তিনি কোনোদিন ব্যভিচার করেননি। কখনো যৌন উত্তেজক ওষুধ ব্যবহার করেননি বলে জানিয়েছেন। ছোট বাচ্চাদের সাথে খেলা করে আনন্দ পান বলে জানান গুলজার খান। ১২ বছর আগে তার হৃদরোগ হয়েছিল। চিকিৎসকরা আনন্দময় পরিবেশে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন বলে জানান তিনি।

ভিডিওটি দেখতে এখান ক্লিক করুণ…