মেইন ম্যেনু

বুদ্ধিমতী নারীদের ভয় পায় পুরুষ

পুরুষরা নাকি মেধাসম্পন্ন বুদ্ধিমতী নারীদের পছন্দ করে। এ কথা কিন্তু সত্যি নয়। বরং বুদ্ধিমতীদের তারা এড়িয়েই চলতে চায়, তা সে যতই সুন্দরী আর স্মার্টই হউক না কেন। কারণ প্রতিভাময়ী ও ব্যক্তিত্বশীল নারীদের তারা ভয় পায়। এটা কোনো প্রচলিত ধারণা নয়। সম্প্রতি এক গবেষণা জরিপেও এ কথার সত্যতা মিলেছে।

সম্প্রতি অনলাইনে এ সংক্রান্ত একটি জরিপ চালিয়েছিল ‘পার্সোনালিটি এন্ড সোসাল সাইকোলজি বুলেটিন’। এতে দেখা গেছে, পুরুষেরা নিজেদের সঙ্গিনী হিসেবে স্মার্ট আর আকর্ষনীয় নারীদের খুঁজে বেড়ালেও বুদ্ধিমতী নারীদের কাছ থেকে তারা দূরেই থাকে। কেননা এসব মেয়েদের তারা নিরাপদ মনে করে না।

গত নভেম্বর যৌথভাবে এ জরিপটি চালিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের ‘ব্যাফেলো ইউনিভার্সিটি, ক্যালিফোর্নিয়া লুথারান ইউনিভার্সিটি ও টেক্সাস ইউনিভার্সিটি। দুই ধাপে চালানো এই গবেষণায় অংশ নিয়েছিল ১০৫ জন পুরুষ। প্রথম পর্যায়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের রোমান্টিক সঙ্গিনী খুঁজে বের করতে নিজেদের চেয়ে কম বা বেশি মেধা সম্পন্ন নারীদের নাম্বার দিতে বলা হয়। তখন তারা নিজেদের চেয়ে বেশি বুদ্ধিমতী নারীদের প্রতি অনুরাগ প্রকাশ করে। কিন্তু পরীক্ষার দ্বিতীয় ধাপে গবেষনার ফলাফল সম্পূর্ণ উল্টে যায়।

এই পরিস্থিতিতে গবেষকরা লক্ষ্য করেন যে, যেসব পুরুষেরা বুদ্ধিজীবি নারীদের প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছিল তারা কিন্তু তাদের আকর্ষনীয় নারী হিসেবে বেশি নাম্বার দেননি। অপেক্ষাকৃত কম মেধাবী নারীদের তারা বেশি নাম্বার দিয়েছে। বিয়ে তো দূরের কথা এমনকি চালাক নারীদের সঙ্গে ডেটিংয়ে যাওয়াতেও তাদের আপত্তি রয়েছে।

গবেষণার দ্বিতীয় ধাপে এসে এটি স্পষ্ট যে, পুরুষেরা বুদ্ধিমতী নারীদের সঙ্গ পছন্দ করে না। এমনকি ওইসব নারীদের সঙ্গে শারিরীক সম্পর্ক স্থাপন করতেও তারা ভয় পায়।

জরিপ এই প্রচলিত ধারণাটির সঙ্গেও সাংঘর্ষিক যেখানে ধরে নেয়া হয় যে, বুদ্ধিমান সন্তান পেতে পুরুষেরা সঙ্গী হিসেবে বুদ্ধিমতী নারীদের সন্ধান করে থাকে। এ সম্পর্কে ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডেভিড ব্রেইনব্রিজ বলেন, গবেষণায় এটা প্রমাণ হয়েছে যে, পুরুষরা সঙ্গী বাছার ক্ষেত্রে মেধার চাইতেও ঘর সংসার ও সন্তান সন্ততিদের দেখভালে দক্ষ মেয়েদের অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।