মেইন ম্যেনু

‘বুলেটকন্যার’ মুখ দেখলেন মা

মায়ের জরায়ুতে গুলিবিদ্ধ শিশুটিকে ডাক্তারেরা নাম দিয়েছেন ‘বুলেটকন্যা’। মাগুরার ‘বুলেটকন্যা’র অস্ত্রোপচার সফলভাবে শেষ হলেও এখনো শঙ্কা কাটেনি। শিশুটির দ্রুত সুস্থ হওয়ার জন্য মায়ের দুধের বিকল্প দেখছেন না ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

সন্তান জন্মের সাতদিন পর বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে ‘বুলেটকন্যা’র মুখ দেখলেন মা নাজমা বেগম। মাগুরা সদর হাসপাতালের একটি এ্যাম্বুলেন্সে করে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে কন্যার বাবা বাচ্চু ভুইয়াসহ ডিএমসিতে পৌছান তিনি।

এ সময় নাজমা বেগম বলেন, জন্মের পর আমি মাত্র একবারই সন্তানের মুখ দেখতে পেরেছি। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি চাই।

ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আমজাদ আলী জানান, গাইনী বিভাগের ২১২ নম্বর ওয়ার্ডে নাজমা বেগমকে ভর্তি করা হয়েছে।

মাগুরা জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদের নির্বাচন নিয়ে শিশুটির চাচা যুবলীগ নেতা ও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী কামরুল ভূঁইয়ার সঙ্গে অপর প্রার্থী আজিবর আলীর দ্বন্দ্ব হয়। এর জের ধরেই ২৩ জুলাই মাগুরা শহরের দোয়ারপাড় কারিগরপাড়ায় কামরুলের বাড়িতে হামলা চালান আজিবরের লোকজন। এ সময় কামরুলে ভাবী অন্তঃসত্ত্বা নাজমা আক্তার (৩৫) গুলিবিদ্ধ হন। মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ভূমিষ্ঠ হয় শিশুটি। অবস্থার অবনতি হলে ঢামেক হাসপাতালে পাঠান হয়।

আরো পড়ুন:

সন্তানের মুখ দেখতে ঢাকার পথে মা (ভিডিও)



(পরের সংবাদ) »