মেইন ম্যেনু

বৃষ্টি উপেক্ষা করে ভক্তদের সাথে মুস্তাফিজের স্বাক্ষাৎ

ঢাকা থেকে নভো এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় যশোর পৌছানোর পর রাত ১০টায় সাতক্ষীরায় পৌঁছান মুস্তাফিজ। সাতক্ষীরায় এক নিকটাত্মীয়ের বাড়ীতে কিছুটা সময় কাটানোর পর রাত সাড়ে ১১টায় তেঁতুলিয়ার নিজের ঘরে পৌঁছান কাটার মাস্টার। বাড়ী পোঁছানো মাত্রই মাকে জড়িয়ে ধরেন মুস্তাফিজ। মা-বাবা আর পরিবারের সবাইকে কাছে পেয়ে যেন চোখে ঘুম নেই আর মুস্তাফিজের। ভাই-বোন আর আত্মীয়-স্বজনদের সাথে গল্প করে রাত ৪টার দিকে ঘুমাতে যান তিনি।

ভোর থেকেই বৃষ্টি ও প্রতিকুল আবহাওয়া উপেক্ষা করে মুস্তাফিজের গ্রামের বাড়ীতে ভিড় জমাতে থাকেন ভক্তরা। শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানোর জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থীরা বাড়ীতে হাজির। আইপিএল খেলা শেষে এক মাস ২৬দিন পর ঘরে ফেরেন এই কাটার মাস্টার।

বৃষ্টি উপেক্ষা করে অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে মুস্তাফিজকে শুভেচ্ছা জানাতে আসা কালিগজ্ঞ উপজেলার উজিরপুর জনতা ব্যাংকের ব্যাবস্থাপক শেখ শামীম রেজা বলেন, মুস্তাফিজ আমাদের ব্যাংকের একজন সম্মানিত গ্রাহক। আমরা গর্বিত মুস্তাফিজকে পেয়ে।

বাল্যবন্ধু আরিফুল ইসলাম আরিফ সকাল ৭টায় মুস্তাফিজকে শুভেচ্ছা এবং খোশগল্প করার জন্য হাজির হন। এছাড়া বন্ধু হাফিজ, যতিন্দ্র রয়েছেন মুস্তাফিজের বাড়ীতেই। প্রায় ২০ কিলোমিটার দূর থেকে বাইসাইকেল যোগে আশাশুনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ২০জন বন্ধু মিলে এসেছেন মুস্তাফিজকে শুভেচ্ছা জানাতে।

এর মধ্যে আসাদুল্লাহ বলেন, আমরা অনেক দূর থেকে এসেছি মুস্তাফিজ ভাইয়ের সাথে দেখা করবো বলে কিন্তু এখনও ঘুমিয়ে আছে। ঘুম থেকে উঠলে শুভেচ্ছা জানিয়ে স্কুলে যাবো। ক্লান্ত মুস্তাফিজ বেলা ১১টায় ঘুম থেকে উঠে সকলের সাথে স্বাক্ষাত করেন। মুস্তাফিজের স্বাক্ষাৎ পেয়ে হাসি-আনন্দে ভরে উঠে আগতদের মুখমণ্ডল।