মেইন ম্যেনু

বেতন এবং মর্যাদায় শিক্ষকরা সবার উপরে থাকবেন: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, সমাজে শিক্ষকদের মর্যাদা সবার ওপরে। অন্য কারও সাথে তুলনা করে শিক্ষকদের মর্যাদা নির্ধারিত হতে পারে না। এক সময় সরকারি বেতন এবং মর্যাদায়ও তারা সবার উপরে থাকবেন।

শুক্রবার বাংলাদেশ লিটারেসি এসোসিয়েশনের উদ্যোগে আয়োজিত ৪র্থ জাতীয় শিক্ষক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী একথা বলেন। ‘পেশাগত উৎকর্ষ সাধন’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রাজধানীর আহসান উল্যাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে দু’দিনব্যাপি এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সরকার শিক্ষকদের দাবি-দাওয়া আমলে নিয়েছে বলেই এ বিষয়ে কমিটি গঠন করেছে। আশা করা যায় কমিটি দাবি পূরণে উদ্যোগ নেবে। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীও সহানুভূতিশীল। এজন্য বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা ভর্তি পরীক্ষা নিচ্ছেন। সামনে ক্লাস-পরীক্ষাও চালিয়ে যাবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ঢাকা আহছানিয়া মিশনের প্রেসিডেন্ট কাজী রফিকুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, আহছানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এএমএম সফিউল্লাহ, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক মনজুর আহমদ, আহছানিয়া মিশনের নির্বাহী পরিচালক এম এহছানুর রহমান, বাংলাদেশ লিটারেসি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক নুরুল ইসলাম।

রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, শিক্ষকদের বেতনভাতা ও মর্যাদার প্রশ্নে কোনো আপস নেই। আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় শিক্ষকদের মর্যাদা আটকে আছে। তবে শিক্ষকরাও নিজেদের দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করতে হবে। শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বৃদ্ধির আহ্বানও জানান তিনি।

‘একুশ শতকের শিক্ষক; শীর্ষক মূল প্রবন্ধে অধ্যাপক মনজুর আহমদ শিক্ষকদের বর্তমান সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি ১০ বছর মেয়াদী কর্মপরিকল্পনা তৈরির পরামর্শ দেন। এই কর্মপরিকল্পনায় জাতীয় শিক্ষা সেবা কোর গঠন, স্নাতক পর্যায়ে শিক্ষককতা বিষয়ক বিশেষ প্রোগ্রাম চালুর সুপারিশ করেন তিনি।