মেইন ম্যেনু

বেরোবিতে প্রক্টরের পদ নিয়ে কাদা ছোড়াছুড়ি

রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) প্রক্টরের মেয়াদ শেষ হলেও এখন পর্যন্ত প্রক্টর নিয়োগ না দেয়ায় হয়রানিসহ বিপাকে পড়েছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। দুই বছর মেয়াদে প্রক্টর নিয়োগের সময় পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কোন নতুন প্রক্টর নিয়োগ দেওয়া হয়নি।

আর এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে আগে যিনি প্রক্টর ছিলেন তিনি এখনো প্রক্টর আছেন। আবার তিনি বলছেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেন আমি প্রক্টর না। এ নিয়ে তৈরী হচ্ছে ঘোলাটে অবস্থা । এমনটিই অভিযোগ করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের সরনাপন্ন হওয়া ব্যক্তিরা।
বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী মোবাশ্বের আলী জানান, আমাদের একটা সমস্যা নিয়ে প্রক্টরের কাছে গেলে তিনি প্রক্টর হিসাবে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। তিনি বলেছেন আমি প্রক্টর না। আবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে গেলে তারা বলছে আগের প্রক্টর এখনো প্রক্টর আছেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সহযোগী অধ্যাপক জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কে সেটা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পরিষ্কার করছে না। তারা যার কথা বলছে তিনি যদি নিজেই তা অস্বীকার করেন তাহলে কি তাকে জোড় করে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, নাকি তাকে যে পূর্ণরায় দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তা তাকে জানানো হয়নি? এটা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পরিস্কার করা উচিত।

এদিকে এ ব্যাপারে সদ্য মেয়াদ শেষ হওয়া প্রক্টর বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল হকের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমার দায়িত্ব ১৪ জুন শেষ হয়েছে, আমাকে নতুন করে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। আর বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন অঘটন ঘটলে তার দায়ভারও আমি নিবো না। কারণ আমি এখন আর প্রক্টর নই। আমি প্রক্টর হিসাবে কোন মন্তব্যও করতে রাজি না।
তিনি আরো বলেন, আমাকে এর আগে যখন দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তখন বলা হয়েছিল যে নতুন দায়িত্ব না দেওয়া পর্যন্ত আমি প্রক্টর থাকবো। কিন্তু সেটাতো রেজিস্টারের কথা আইনের কথা নয়। আইন অনুযায়ী আমাকে নতুন করে দায়িত্ব না দেওয়া পর্যন্ত আমি প্রক্টর নই।
এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মোর্শেদ উল আলম রনির কাছে ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান প্রক্টর কে?’ জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রক্টর আগে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল হক ছিলেন তিনিই এখনো আছেন।

মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তাকে নতুন করে দায়িত্ব দেওয়া না হলেও কেমন করে তিনি প্রক্টর থাকেন জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আগে যখন তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তখন সেখানে বলা হয়েছিল যে প্রশাসন পুনরায় কোন প্রক্টর নিয়োগ না দেওয়া পর্যন্ত তিনি প্রক্টর থাকবেন ।

কিন্তু আগের প্রক্টর নতুন করে দায়িত্ব না দেওয়া পর্যন্ত আর নিজেকে প্রক্টর মনে করেন না এরপরও আপনারা কিভাবে তাকে প্রক্টর বলছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা আমি বলতে পারবো না। উপাচার্য ভালো করে বলতে পারবে। তবে তাকে নতুন করে এখনো কোন দায়ত্ব দেওয়া হয়নি এটা তিনি নিশ্চিত করেছেন।

এব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. একেএম নূর-উন-নবী জানান, তাকে(বর্তমান প্রক্টরকে) বলা হয়েছে নতুন করে দায়িত্ব না দেওয়া পর্যন্ত তিনি প্রক্টর থাকবেন। তিনি আরো বলেন, আমি এখন ঢাকায় আছি । ক্যাম্পাসে যাওয়ার পর ব্যাপারটা দেখবো।