মেইন ম্যেনু

বেরোবির সহকারী প্রক্টর লাঞ্চিত-শাস্তির দাবিতে লিখিত অভিযোগ

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহীনুর রহমানকে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের এক কর্মচারী লাঞ্ছিত করার অভিযোগে অভিযুক্ত কর্মচারীর শাস্তিসহ তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার(০৯ জুলাই) সহকারী প্রক্টর ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহীনুর রহমান সিকিউরিটি গার্ড নুরুজ্জামান (ভলকা রুবেল) এর বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত ভাবে এই অভিযোগ দায়ের করেন।
লিখিত অভিযোগপত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় সুত্রে জানা যায়, বেতন সংক্রান্ত জটিলতায় বেশকিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী রেজিস্ট্রার দপ্তরে তালা লাগানোর ঘটনায় গত শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়য়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. একে এম নূর-উন-নবীর সাথে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের সেকশন অফিসার (গ্রেড-২)রাফিউল হাসান, শাহীন সর্দার, কাজ নাই মজুরি নাই এর কর্মচারী গুলশান আহমেদ শাওন সহ অন্যান্যদের একটি জরুরী আলোচনা সভা চলছিল। এসময় সেখানে উপস্থিত থাকা বিশ্ববিদ্যালয়য়ের সিকিউরিটি গার্ড নুরুজ্জামান(ভলকা রুবেল) বিশ্ববিদ্যালয়য়ের উপাচার্যকে অকথ্য ভাষায় কথা বলা সহ উপস্থিত সহকারী প্রক্টর ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহীনুর রহমানকে গালাগালি করতে থাকে। এমতাবস্থায় সেকশন অফিসার (গ্রেড-২)রাফিউল হাসান ও কাজ নাই মজুরি নাই এর কর্মচারী গুলশান আহমেদ শাওন মিলে সিকিউরিটি গার্ড নুরুজ্জামান(ভলকা রুবেল)কে উপাচার্যের বাসভবনের ভিতর থেকে বাইরে বের করে দেয়।
আলোচনা শেষে সবাই বের হতে গেলে বাসভনের সামনে দাড়িয়ে থাকা সিকিউরিটি গার্ড নুরুজ্জামান (ভলকা রুবেল) শাহীনুর রহমানকে আবারও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করাসহ তাকে লাঞ্ছিত করে। এমনকি বিভিন্ন প্রকারের হুমকি প্রদান করে।
এই ঘটনায় মোঃ শাহীনুর রহমান উক্ত অভিযুক্ত কর্মচারীকে শাস্তির আওতায় আনা সহ তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবিতে আজ রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত ভাবে এই অভিযোগ দায়ের করেন। এই অভিযোগের অনুলিপি বিশ্ববিদ্যালয়য়ের প্রক্টর অফিস,পিএস টু ভিসি এবং জনসংযোগ অফিসেও পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।
এদিকে একজন সামন্য কর্মচারী কিভাবে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের উপাচার্য সহ সহকারী প্রক্টর ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ শাহীনুর রহমানকে লাঞ্ছিত করে তা নিয়ে সবার মাঝে উদ্বিগ্ন দেখা দিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়য়ের অন্যান্য শিক্ষক,শিক্ষার্থী সহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এই ঘটনায় অভিযুক্তকে শাস্তির আওতায় আনার জোড়ালো দাবি জানিয়েছেন।
এব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) মোঃ মোর্শেদ উল আলম রনি অভিযোগ দায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, উপাচার্য স্যার ঢাকা থেকে আসলেই আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।