মেইন ম্যেনু

বেশিদিন আর বাকি নেই, আসছে আয়ু বাড়ানোর ওষুধ!

এই সুন্দর ভুবনে কেউই মরতে চায় না। একটু বেশিদিন বেঁচে থাকতে চায়। এর জন্য কত চেষ্টাই না করছেন সবাই। কিন্তু যদি এমন কোনো ওষুধ হয় যাতে আয়ু বেড়ে যেতে পারে আরো ১০ বছর! সেই স্বপ্ন আর বেশি দূরে নেই। কিছুদিনের মধ্যেই সত্যি হতে চলেছে সেই স্বপ্ন। বয়স বাড়ার আসল কারণ বের করে ফেলেছেন বিজ্ঞানীরা। তা থেকেই বয়স কমানোর দাওয়াই আনা সম্ভব বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে এ কথা একবাক্যে স্বীকার করতেই হবে যে, হায়াত-মউত একমাত্র সৃষ্টিকর্তার হাতেই। কার মৃত্যু কখন কীভাবে হবে তা একমাত্র তিনিই ভালো জানেন।

অবশ্য গবেষণা বলছে , GSK-3 নামে প্রোটিন মলিকিউল আমাদের আয়ু কমানোর জন্য দায়ী। এটা দূরে সরিয়ে রাখতে পারলেই বাড়বে আয়ু। যাতে আছে GSK-3। এমন একটি ফল নিয়ে গবেষণা করে দেখা গেছে, লিথিয়াম ব্যবহার করে সেগুলোর আয়ু বাড়ানো যাচ্ছে অন্তত ১৬ শতাংশ।

এক প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে কলকাতা২৪।

গবেষকদের ধারণা, লিথিয়াম কিংবা সমগোত্রীয় কোনো ওষুধ, যার বেশি সাইড এফেক্ট হবে না, সেগুলো ব্যবহার করে আয়ু বাড়ানো সম্ভব। এছাড়া এর মাধ্যমে বয়সজনিত মারণরোগ যেমন, অ্যালঝাইমারস, ক্যানসার, পারকিনসনস ডিজিজ, ডায়াবেটিসও দূর করা সম্ভব হবে।

এক গবেষকের কথায়, এই GSK-3 আবিষ্কারের ফলে ভবিষ্যতে সব বয়সজনিত রোগ দূর করা সম্ভব হবে। মাঝবয়সেই এই ওষুধ নিতে হবে।

হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ডা. জর্জ জানান, আয়ু বাড়ানো নিয়ে অনেক বিতর্ক রয়েছে। তবে মৃত্যুটা পিছিয়ে নিয়ে যাওয়াটা বেশি জরুরি। যেমন ৭৫ বছরের বদলে যদি ৯০ বছরে অ্যালঝাইমারস হয়, সেটা অনেক বেশি কাঙ্ক্ষিত। কারণ বেশিদিন বাঁচার থেকে যতদিন বাঁচবে ততদিন সুস্থভাবে থাকতে চায় মানুষ।

বিজ্ঞানীরা এও জানিয়েছেন, হয়তো আগামী কয়েক দশকেও আয়ু বাড়ানোর ওষুধ পাওয়া যাবে না। তবে যদি কখনো পাওয়া যায় তা ৭ থেকে ১০ বছর আয়ু বাড়ানো সম্ভব।