মেইন ম্যেনু

ব্যবসা ভালো না হলে টিভি চ্যানেল বন্ধের পরামর্শ তথ্যমন্ত্রীর

চিকিৎসকদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে দেশের সংবাদমাধ্যমগুলোর কঠোর সমালোচনা করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেছেন, দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে লেখার আগে সাংবাদিকদের অন্তত ১০ বার ভাবা উচিৎ।

বৃহস্পতিবার বিশ্ব হেড-নেক ক্যান্সার দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত এক সিম্পোজিয়ামে প্রধান অতিথির বক্তৃতার সময় তিনি এসব কথা বলেন।

দেশের বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও টিভি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন দিয়ে অপচিকিৎসা চালানো হচ্ছে বলে চিকিৎসকরা অভিযোগ করলে মন্ত্রী বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি টিভি চ্যানেলগুলোর সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলে ব্যবসা ভালো না, তাই দেখাতে হয়। আমি বলেছি ব্যবসা ভালো না হলে বন্ধ করে দেন। আসলে এই ব্যবসা তো ‘ফ্রন্ট’ এর ব্যবসা। আসল ব্যবসা হচ্ছে ভয় দেখানো।’

কিডনি নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত খবরের সমালোচনা করে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশে আগে কত সুন্দর কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট হতো। একটি পত্রিকা এ নিয়ে রিপোর্ট করার পর তা বন্ধ হয়ে গেল। সব রোগী এখন ভারতে চলে যাচ্ছে। আমি মনে করি অপচিকিৎসার মতো এটিও অপসাংবাদিকতা।’

হাসানুল হক ইনু বলেন, গণমাধ্যম সব সময় চিকিৎসকদের, চিকিৎসা ব্যবস্থাকে ‘গালাগালি’ করে। প্রতিদিন ৩০ লাখ মানুষ বিভিন্ন হাসপাতালে সেবা পান, সাত হাজারেরও বেশি অস্ত্রোপচার হয়। কয়জন রোগী মারা যাচ্ছে? আপনারা ক্যামেরা নিয়ে হাসপাতালের সামনে বসে থাকুন। দেখবেন কত ভালো আমাদের চিকিৎসকরা। আসুন আমরা সবাই এই চিকিৎসকদের হাততালি দিই।’

বক্তৃতার শেষভাগে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস হলো সমাজে ক্যান্সারের মতো। এসব প্রতিরোধে হয় কেমো দিতে হবে, নয় তো কেটে ফেলতে হবে। যারা মাঝামাঝি অবস্থানে থাকতে চান বা এদের সঙ্গে আপসের ফর্মুলা দেন, তাদের বলব আপনারা হেড-নেক সার্জনদের কাছে যান।’

বাংলাদেশ সোসাইটি অব হেড-নেক সার্জনস্-এর সভাপতি অধ্যাপক বেলায়েত হোসেন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএসএমএমইউ এর উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান এবং বিএমডিসির প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক আবু সফি আহমেদ আমিন।