মেইন ম্যেনু

ব্যাডমিন্টন খেলার দারুণ ৭ টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

এই শীতে জনপ্রিয় একটি খেলা ব্যাডমিন্টন। পাড়ায় পাড়ায় যেখানেই একটু জায়গা আছে সবাই মেতে উঠেছে এই খেলায়। নিজেরাই চাঁদা তুলে কোর্ট বানাচ্ছে, খেলছে। যেন এক নেশা। এই খেলা শুধু আনন্দই দেয় না, দেয় স্বাস্থ্য সুবিধাও। যেকোন খেলার রয়েছে উপকারী দিক। আসুন জেনে নিই ব্যাডমিন্টন খেলার ৭ টি স্বাস্থ্য সুবিধার কথা।

১। ওজন কমানোর জন্য

এক ঘন্টা ব্যাডমিন্টন খেললে আপনি ৪৮০ ক্যালরি বার্ন করতে পারেন, যেখানে সমপরিমাণ সময় দৌড়ালে বার্ন হয় এর মাত্র অর্ধেক। অন্য যে কোন খেলার তুলনায় ব্যাডমিন্টন খেলায় ক্যালরি বার্ন হয় বেশী। যদি আপনি নিয়মিত ব্যাডমিন্টন খেলার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন তাহলে প্রতি মাসে ৪ কেজি ওজন কমাতে সক্ষম হবেন। এই খেলাটি ভীষণ পরিশ্রমের, শরীরের প্রায় সব মাসল ব্যবহৃত হয়। তাই ওজন কমাতে দ্রুত কার্যকরী।

২। মেটাবলিজম রেট বাড়ায়

ব্যাডমিন্টন খেলা আমাদের শরীরের Cardio-pulmonary function বাড়াতে সাহায্য করে যার কারণে স্বাভাবিক নিয়মে প্রচুর পরিমাণে ঘাম হয় । এর সাথে যে টক্সিন নিঃসৃত হয় যা আপনাকে একটা হাল্কা এবং ভারমুক্ত অনুভুতি দেয়।

৩। কাজ করার আগ্রহ এবং একাগ্রতা বাড়ায়

নিয়মিত ব্যাডমিন্টন খেলা মনকে সতেজ এবং ফুরফুরে করে তোলে। মানসিক ক্লান্তি দূর করে যা আপনার কাজের প্রতি মনোযোগ বাড়িয়ে দেয় কয়েকগুণ। ফলে আপনি যে কাজেই হাত দেন না কেন সেটা হয় আরো ফলপ্রসু। এই খেলা একই সাথে বুদ্ধির চর্চা এবং বিকাশ ও করে।

৪। হৃদপিণ্ডের কার্যক্ষমতা বাড়ায়

প্রায়ই আমাদের যাদের অতিমাত্রায় কোলেস্টরল আছে তাদের হৃদপিণ্ডের দেয়াল চর্বির জন্য বাধাপ্রাপ্ত হয়। ব্যাডমিন্টন হৃদপিণ্ডের মাসলকে সচল করে। কলেস্টরল কমায়। ফলে হৃদপিণ্ডজনিত স্বাস্থ্য সমস্যার ঝুঁকি কমে।

৫।হাড়ের ঘনত্ব বাড়ায় এবং মজবুত করে

ব্যাডমিন্টন খেলা হাড়ের কোষগুলোর গ্রোথ বাড়ায়। সামগ্রিকভাবে শরীরের সামর্থ্য বাড়িয়ে আপনাকে করে আরো শক্তিশালী।

৬।ডায়বেটিসের ঝুঁকি কমায়

ব্যাডমিন্টন আপনাকে ১ ঘন্টায় যে পরিমাণ পরিশ্রম করতে বাধ্য করে তা আপনার রক্তের সুগার কমায় যা ডায়বেটিসের জন্য মূলত দায়ী। এটি লিভার থেকে সুগার সরবরাহ কমিয়ে দেয়, নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং আপনি থাকেন ঝুকিমুক্ত।

৭। উচ্চরক্তচাপ কমায়

ঔষধপত্র ছাড়া উচ্চরক্তচাপ কমানো খুবই কঠিন। কারণ শরীর ওইসব ঔষধ গ্রহণে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। ব্যাডমিন্টন এক্ষেত্রে আপনাকে দারূণ সহযোগিতা করতে পারে। এই খেলা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং শরীরে রাসায়নিক পদার্থের সরবরাহ বাড়ায় যা ঔষধের অভ্যস্থতাকে মোকাবেলা করে।

খেলাধূলার মত দারুণ শরিরচর্চা আর হয় না। নিয়মিত খেলাধুলা আপনাকে যেমন তরতাজা রাখবে তেমনি রাখবে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা থেকে ঝুকিমুক্ত। তাই খেলাধুলা করুন, সুস্থ থাকুন, ভাল থাকুন।