মেইন ম্যেনু

ব্যায়ামের পর প্রচন্ড ক্ষুধা- জেনে নিন কী করে সামলাবেন

সুস্থ জীবনযাপনের তাগিদে নতুন নতুন ব্যায়াম শুরু করেছেন অথবা শুরু করছেন নতুন ধরণের ব্যায়াম? তাহলেই আপনি বুঝবেন ক্ষুধাটা আসলে কতো ভয়ংকর! ব্যায়াম শেষ হবার পর যা দেখবেন তাই খেয়ে ফেলতে ইচ্ছে করে। ওজন কমানোর উদ্দেশ্যে ব্যায়াম শুরু করলেন, অথচ ক্ষুধার চোটে আপনার খাওয়ার পরিমাণ আরও বেড়ে গেলো- এমনটা হলে তো হিতে বিপরীত। কী কারণে ব্যায়ামের পর এতোটা ক্ষুধা লাগে, আর এই ক্ষুধা সামলাতে কী করবেন, তা জানা যায় Popsugar থেকে।

কেন এই ক্ষুধা?

ব্যায়ামের ধরণের কারণে এই রাক্ষুসে ক্ষুধা তৈরি হতে পারে। গবেষণায় দেখা যায়, আপনি যত ভারী ব্যায়াম করবেন, আমাদের শরীর তত কম গ্রেলিন (ক্ষুধার হরমোন) উৎপাদন করে। এ কারণে বেশি সময় ধরে চলা অথচ লো-ইন্টেনসিটি ব্যায়ামের কারণে ক্ষুধা বাড়তে পারে। কিন্তু অন্যান্য গবেষণায় দেখা যায়, যেসব নারী ভারি ব্যায়াম করেন, ব্যায়ামের পর তাদের ক্যালোরি গ্রহণের মাত্রা বেশি হয়ে থাকে। খুব কষ্টের ব্যায়াম শেষেও যদি আপনার মনে হয় আপনি আস্ত একটা পিজ্জা খেয়ে নিতে পারবেন, তবে তার কারণ সম্ভবত ডিহাইড্রেশন অর্থাৎ পানিস্বল্পতা। অনেক সময়েই আমাদের শরীর তৃষ্ণাকে ক্ষুধা বলে মনে করে। আর ব্যায়ামের সময়ে যদি আপনার শরীর যথেষ্ট পানি না পায়, তাহলে ব্যায়ামের পর আপনার দারুন ক্ষুধা লাগতে পারে।

আরেকটি গবেষণায় দেখা যায়, আপনার শরীর যত ফিট হবে, ব্যায়ামের পর ভুরিভোজের ইচ্ছে তত কম হবে। আপনার শরীর ও মন ব্যায়ামের সাথে থিক মানিয়ে না নেবার আগ পর্যন্ত এই ক্ষুধা আপনার থাকতেই পারে।

Huffington Post এর মতে, এই ক্ষুধা আসল ক্ষুধা নাও হতে পারে। হয়তো এ সময়ে বেশি না খাওয়াই উচিত। আপনার বুঝতে হবে কোনটি আসল ক্ষুধা, আর কোনটি আসলে প্রচন্ড তৃষ্ণা।

Fitness Magazine এর মতে, ব্যায়ামের ফলে শরীর অনেকটা ক্যালোরি হারায়, ফলে এই ক্যালোরি ফিরে পেতেই সে আবার অনেক করে খেতে চায়। কিন্তু জরি আপনার এক্সারসাইজ এবং ক্যালোরি গ্রহণের মাঝে ভারসাম্য না থাকে, তাহলে ওজন বাড়ার আশংকা থাকে। কী করবেন তাহলে?

ক্ষুধা কী করে সামলাবেন?

ব্যায়ামের পর বেশি বেশি খাওয়া হচ্ছে। এটা দেখে আপনার ব্যায়ামের ইচ্ছেই কমে যেতে পারে। কিন্তু কিন্তু দৈনিক ২০-৩০ মিনিট ব্যায়াম করাটা শুধু ওজন কমানোর জন্য নয়, বরং ডায়াবেটিস রোধ, ইমিউনিটি বাড়ানো এবং হাসিখুশি থাকার জন্যও জরুরি। এ কারণে একটু বেশি খাচ্ছেন বলেই ব্যায়াম ছেড়ে দেওয়া যাবে না। এরচাইতে বরং করুন এই কাজগুলো-

– জিম ট্রেইনারের সাথে কথা বলে হাই ইন্টেনসিটি কিছু ব্যায়াম করার চেষ্টা করুন, এগুলো ক্ষুধার হরমোন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করবে।

– ব্যায়ামের আগে ও পরে প্রচুর পানি পান করুন।

– সপ্তাহে কমপক্ষে তিনবার পেশি গঠনের জন্য স্ট্রেংথ ট্রেইনিং করুন

– ব্যায়ামের কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে খান ছোট একটি স্ন্যাক

– ব্যায়ামের পর হাই-কার্ব, হাই-প্রোটিন একটা স্ন্যাক খান, আর রাতের খাবার খান একটু দেরি করে।

– ব্যায়াম বজায় রাখুন। ব্যায়ামের সাথে শরীর একটু একটু করে মানিয়ে নিলে তখন আপনি বুঝবেন ক্ষুধা কম রাখার জন্য কী কী করতে হবে।