মেইন ম্যেনু

ব্রণ নিয়ে এই ভুল ধারণা সবার মাঝেই আছে, তবে সাবধান! বিশ্বাস করে বিপদ ডাকবেন না…

ব্রণ উঠতি বয়সি ছেলেমেয়েদের কাছে অত্যন্ত দুশ্চিন্তার বিষয়। বহু প্রাপ্তবয়স্ক মানুষেরও এই সমস্যা রয়েছে। সেই সঙ্গে রয়েছে অনেক ভুল ধারণা।

প্রথমেই যেন রাখা দরকার যে ব্রণ কেন হয়?
আমাদের চামড়ার নীচে একধরনের সুক্ষ্ম তৈলগ্রন্থি রয়েছে। চামড়া কে তৈলাক্ত রাখতে ওই গ্রন্থি এক রকমের তেল নিঃসরণ করে। কিন্তু কখনও কখনও ওই তেল অতিরিক্ত নিঃসরিত হয় ও চামড়ার মৃত কোষের সঙ্গে মিশে গ্রন্থিগুলির মুখ আটকে দেয়। জায়গাটা লাল হয়ে ফুলে ওঠে। ব্রণের সৃষ্টি হয়।

দেখে নেওয়া যাক ব্রণ নিয়ে কী কী ভুল ধারণা রয়েছে—

১। অনেকে বলেন বেশি ভাজাভুজি খাবার খেলে ব্রণ হয়। আদৌ এর সঙ্গে ব্রণ-র সম্পর্ক নেই।

২। অনেকর ধারণা, তৈলাক্ত এবং গুরুপাক খাবার খেলে ব্রণ হয়। এটাও ঠিক নয়।

৩। শাক-সবজি না খেলে ব্রণ হবে এমন কোনও কারণ নেই। তবে এমনিতেই ত্বক ভাল রাখার জন্য ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার দরকার।

৪। অনেকে বলেন, বেশি করে জল না খেলে ব্রণ হয়। এটাও ভুল ধারণা।

৫। কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য ব্রণ হয়— এই ধারণাটিও সঠিক নয়। পেটের সঙ্গে অন্য অনেক কিছুর সম্পর্ক থাকলেও ব্রণ-র নেই।

৬। ব্রণ হলে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধোওয়া ঠিক নয় বলা হয়। এটাও সম্পূর্ণ ঠিক নয়। তবে খেয়াল রাখা উচিত ফেসওয়াশটি কেমন মানের।

৭। অনেকে ব্রণ হলে সেখানে টুথপেস্ট লাগানোর পরামর্শ দেন। এটা একেবারেই ঠিক ধারণা নয়।

৮। ব্রণ ফাটিয়ে দেওয়ার পরামর্শও শোনা উচিত নয়। এটা মারাত্মক বিপদ ডাকতে পারে। সব মিলিয়ে ব্রণ নিয়ে ভুল পরামর্শে কান না দিয়ে প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।