মেইন ম্যেনু

কুড়িগ্রামে নতুন করে বন্যা

ব্রহ্মপুত্রের পানি বিপৎসীমার ১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে কুড়িগ্রামের নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানি বৃদ্ধির ফলে প্রধান প্রধান নদ-নদীগুলোতে বন্যা পরিস্থিতি বিরাজ করছে। বুধবার সকালে ব্রহ্মপূত্র নদের পানি চিলমারী পয়েন্টে বিপদসীমার ১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

কুড়িগ্রাম পয়েন্টে ধরলা নদীর পানি ১ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই করছে। ফলে এসব নদ-নদীর অববাহিকায় অবস্থিত দেড় শতাধিক চর ও দ্বীপচরের মানুষ পানিবন্দি হয়ে হয়েছে। এতে কুড়িগ্রাম সদর, ভুরুঙ্গামারী, নাগেশ্বরী, রাজারহাট, উলিপুর, চিলমারী, রাজিবপুর ও রৌমারী উপজেলায় প্রায় ৩৫ হাজার বানভাসি মানুষ রয়েছে খাদ্য ও বাসস্থান সংকটে। বন্যার ফলে ডুবে গেছে সবজি, পাট ও কলাসহ বিভিন্ন ফসলের ক্ষেত। যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ার পাশাপাশি বন্ধ হয়ে গেছে দিনমজুরদের কাজ-কর্ম। কয়েকশ পরিবার আশ্রয় নিয়েছে রাস্তা ও বন্যা আশ্রয়কেন্দ্রে। পানির প্রবল তোড়ে চরাঞ্চলে ভেঙে গেছে প্রায় অর্ধশত ঘর-বাড়ি।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: মাহফুজার রহমান জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ব্রহ্মপুত্র নদের পানি চিলমারী পয়েন্টে ২৪.১৬সে.মি.ধরলা নদী ধরলা ব্রীজ পয়েন্ট ২৬.৪৮ সে.মি.দুধকুমার নদীর নুনখাওয়া পয়েন্টে ২৬.০২ সে.মি. তিস্তা নদীর পানি তিস্তা ব্রীজের পয়েন্টে ২৮.৫১ সে.মি. দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।