মেইন ম্যেনু

ব্রাজিলের প্রতিশোধ না প্যারাগুয়ের পুনরাবৃত্তি

২০১১ সালে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে হেরে মর্যাদাপূর্ণ কোপা আমেরিকা আসরের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ছিটকে পড়েছিল ব্রাজিল। চিলিতে অনুষ্ঠিত এবারের আসরেও ওই শেষ আটের মঞ্চেই মুখোমুখি হচ্ছে লাতিন অঞ্চলের এই দুই পরাশক্তি। সেমিফাইনালের টিকেট পেতে আজ রাতে নিজেদের লক্ষ্য পূরণে মাঠে নামবেন তারা।

গত আসরে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে ছিটকে পড়ার স্মৃতিটা এখনো বেশ টাটকা ব্রাজিলের। তাই একই মঞ্চে এবার প্রতিশোধের অপেক্ষায় থাকতে পারে দলটি। কিন্তু দল দারুণ ছন্দে থাকলেও কিছুটা শঙ্কা থেকে যাচ্ছে সেলেসাওদের। কারণ তাদের সবচেয়ে বড় তারকা নেইমারের অনপুস্থিতে।

আর সেজন্যই হয়তো কথা বলতে কিছুটা সংযত ব্রাজিল কোচ কার্লোস দুঙ্গা। প্রতিশোধের কথা ভুলে নিজেদের সেরাটাই দেওয়ার কথা বলছেন তিনি। কোচের সঙ্গে সুর মিলিয়ে ব্রাজিলের ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভাও বলেন, ‘প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা (প্যারাগুয়ে) কতটা কঠিন সেটা গতবারই দেখিয়েছে। আমি বলছি না যে এই ম্যাচে প্রতিশোধ নেব। তবে জয়ের জন্য আমাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে।’

ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ বিপর্যয়ের পর কার্লোস দুঙ্গার অধীনে বেশ বদলে গেছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। সর্বশেষ ১৩ ম্যাচে মাত্র একবার হারের স্বাদ পেয়েছে দুঙ্গার শিষ্যরা। তবে দলের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন নেইমারের অভাবে এখন ভিন্ন পরিকল্পনা করতে হচ্ছে দুঙ্গাকে। কারণ বার্সেলোনার এই তারকাই যে ব্রাজিলিয়ানদের আক্রমণের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার।

তবে নেইমার ছাড়াও তারকাসমৃদ্ধ ব্রাজিল অনেক দূর যেতে পারবে, সেটা বিশ্বাস করছেন তাদের ঘোর প্রতিপক্ষরাও। চার ম্যাচ নিষেধাজ্ঞার জন্য নেইমারে কোপা অভিযান শেষ হলেও সেলেসাওরা এখনো শক্তিশালী, এ দাবি করে প্যারাগুয়ের ডিফেন্ডার ব্রুনো ভালদেজ বলেন, ‘নেইমারহীন ব্রাজিল ভিন্ন ধরনের। কিন্তু আমরা জানি, তাদের এখনো বেশ কিছু অসাধারণ খেলোয়াড় আছে। তবে আমরা শান্ত রয়েছি এবং ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করছি।’

২০১১ সালে কোয়ার্টার ফাইনালে পেনাল্টি শুটআউটে ব্রাজিলকে হারিয়েছিল প্যারাগুয়ে। ওই আসরে দারুণ ফর্মে থাকা দলটি শেষ পর্যন্ত থামে ফাইনাল ম্যাচে। উরুগুয়ের বিপক্ষে হেরে লাতিন শ্রেষ্ঠত্বের কাঙ্খিত মুকুট জিততে না পারার বেদনা এখনো পোড়াচ্ছে তাদের। তাই পুরনো ক্ষতে মলম দিতে কাল চেনা রূপে দেখা যেতে পারে দলটিকে।

তবে পরিসংখ্যানের পৃষ্ঠা উল্টালে ফলাফল ব্রাজিলের পক্ষেই কথা বলে। কোপায় সর্বশেষ ১১ ম্যাচে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে মাত্র একটিতে হেরেছে ব্রাজিল। সাম্বা ফুটবলের প্রতিনিধিদের বিপক্ষে কোপায় শেষ নয় ম্যাচে মাত্র ৩টি গোল করতে সক্ষম হয়েছে বর্তমান রানার্সআপরা। গত আসরে জিতলেও কোপায় প্যারাগুয়ের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বিপর্যয়টি ছিল ব্রাজিলের বিপক্ষেই। ১৯৪৯ সালে সেলেসাওদের বিপক্ষে ৭-০ গোলে লজ্জাজনকভাবে হেরেছিল তারা। আর সর্বোচ্চ বিপর্যয়টি ছিল আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ৮-০ গোলের (১৯২৬ সালে)।

সব মিলিয়ে ব্রাজিলের সঙ্গে আগের ৭৪ সাক্ষাতের মাত্র ১০টিতে জয় পেয়েছে প্যারাগুয়ে। কিন্তু সব পরিসংখ্যান পক্ষে থাকা সত্বেও ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় শঙ্কা- নেইমারকে ছাড়া নকআউক পর্বে মাঠে নামা। কারণ, এই নেইমারকে ছাড়াই ঘরের মাঠে জার্মানি এবং তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে চরম বিপর্যয়ের মধ্যে পড়েছিল পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।