মেইন ম্যেনু

ব্রিটেনে রাজনৈতিক প্রচারণায় বাংলাদেশি টি-শার্ট, তোপের মুখে লেবার নেতা

ব্রিটিশ লেবার পার্টির প্রধান ও দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা জেরেমি করবিন বরাবরই শ্রমিকদের অধিকার নিয়ে সোচ্চার। বাংলাদেশের গার্মেন্টস শ্রমিকদের নিম্ন মজুরি নিয়েও একাধিকবার সমালোচনা করেছেন সমাজতান্ত্রিক মতাদর্শে বিশ্বাসী বামপন্থী এই ব্রিটিশ নেতা। তবে এবার শ্রমিক ঠকানোর অভিযোগ উঠেছে এই নেতার বিরুদ্ধে। তাও বাংলাদেশি শ্রমিক।

বেশ কিছুদিন ধরেই লেবার পার্টিতে এই নেতাকে নিয়ে শুরু হয় সমালোচনা। নেতৃত্ব টিকিয়ে রাখতে আস্থা ভোটের প্রশ্ন ওঠে লেবার এমপিদের মধ্যে। নিজের পদ টিকিয়ে রাখতে ব্রিটেনে প্রচারণাও শুরু করেছেন তিনি। পরবর্তী ভোটে যাতে তাকেই সমর্থন দেয় লেবার প্রতিনিধিরা সেজন্যই প্রচারণার আয়োজন।

প্রচারণার অর্থ তুলতে ১০ পাউন্ড (১ হাজার ৩২ টাকা) করে নিজের পক্ষে তৈরি করা টি-শার্ট বিক্রি করেছেন তিনি। আর সেই টি-শার্টগুলো তৈরি করেছেন বাংলাদেশের দরিদ্রপীড়িত গার্মেন্টস শ্রমিকরা। একেকটি শার্ট তৈরিতে যাদের দেয়া হয়েছে মাত্র ৩০ পেন্স (৩১ টাকা)। ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইলের এক প্রতিবেদনে জানানো হয় এই তথ্য।

দিনে ১০ ঘণ্টা পরিশ্রম করে করবিনের ওই টি-শার্টগুলো তৈরি করেছেন বাংলাদেশের গার্মেন্টস শ্রমিকরা। এদেশের গার্মেন্টস শ্রমিকরা বৈষম্যের শিকার- এমন অভিযোগ তুলে ভোক্তাদের বাংলাদেশি পোশাক কেনার ব্যাপারে দ্বিতীয়বার চিন্তা করে দেখতে একাধিকবার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

2016_07_24_19_14_42_YxDBWcFD3pesHwetiXfKa5e9gD3y9z_original

নিজের পক্ষে প্রচারণা চালাতে করবিন ‘মোমেন্টাম’ নামের বাম ধারার যে সংগঠনটি তৈরি করেছেন তার জন্য বিভিন্ন ডিজাইনের শত শত টি-শার্ট বাংলাদেশ থেকে কিনে নিয়েছেন। এগুলো তিনি ব্রিটেনে বিক্রি করছেন ১০ পাউন্ড করে। বাংলাদেশের এক গার্মেন্টস শ্রমিক আবদুল (৩৫) জানান, তাদের হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রমে তৈরি পোশাকগুলো ওই রাজনীতিবিদ ব্যবহার করছেন। সেগুলো অনেক দামে বিক্রি করছেন। অথচ তাদের ঠকানো হচ্ছে।

ডেইলি মেইলের ওই প্রতিবেদনে বাংলাদেশি গার্মেন্টস শ্রমিকদের স্বল্প মজুরি, নিম্ন মানের বাসস্থান, চাকরিক্ষেত্রে নানা দুর্ভোগসহ নানা দুঃখ দুর্দশার কথা তুলে ধরা হয়। এদিকে বাংলাদেশ থেকে স্বল্পমূল্যে পোশাক কিনে নিয়ে উচ্চমূল্যে বিক্রি করায় করবিনের সমালোচনা করেছেন ব্রিটিশ এমপিরা।

শনিবার অবশ্য যে গার্মেন্টস থেকে করবিন টি-শার্টগুলো কিনে নিচ্ছেলেন তার সঙ্গে চুক্তি বাতিল করা হয়েছে। করবিনের মোমেন্টাম শিবিরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শ্রমিকদের স্বল্প মজুরি দেয়ার ব্যাপারে গার্মেন্টসের পক্ষ থেকে আগে তাদের কিছু জানানো হয়নি।