মেইন ম্যেনু

ব্লগার রাজীব হত্যা মামলার রায় ৩১ ডিসেম্বর

বহুল আলোচিত ব্লগার রাজীব হায়দার শোভন হত্যা মামলায় রায় ঘোষণা করা হবে ৩১ ডিসেম্বর। হত্যাকাণ্ডের দুই বছর সাড়ে নয় মাসের মাথায় এই রায় হতে যাচ্ছে।

সোমবার ঢাকার ঢাকার ৩ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাঈদ আহমেদ ‍যুক্তি তর্কের শুনানি শেষে রায়ের জন্য ওই তারিখ ধার্য করেন।

গত ২৪ ডিসেম্বর এ মামলায় যুক্তি তর্ক শুনানি শুরু হয়। এরপর ২৭ ডিসেম্বর তা অব্যাহত থাকে এবং ২৮ ডিসেম্বর ওই যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়।

এ মামলার অভিযুক্ত আসামিরা হলেন, এহসানুর রেজা রুম্মান, নাফিজ ইমতিয়াজ, আনসারুল্লাহ বাংলাটিমের প্রধান জসীম উদ্দিন রাহমানী, ফয়সাল বিন নাইম ওরফে দিপু, মাকসুদুল হাসান অনিক, মো. নাঈম সিকদার ওরফে ইরাদ, সাদমান ইয়াছির মাহমুদ ও রেদোয়ানুল আজাদ রানা (পলাতক)।

আত্মপক্ষ শুনানিতে পলাতক আজাদ রানা বাদে সব আসামিই হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করে ন্যায় বিচার প্রার্থনা করেছেন। অথচ এদের মধ্যে পাঁচজন হত্যাকাণ্ডে নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে এর আগে জবানবন্দী দিয়েছিল। এরা হলেন, ফয়সাল বিন নাইম ওরফে দিপু, এহসানুর রেজা রুম্মান, মাকসুদুল হাসান অনিক, নাঈম সিকদার ওরফে ইরাদ ও নাফিজ ইমতিয়াজ।

মামলাটিতে ২০১৪ সালের ২৮ জানুয়ারি চার্জশিট দাখিল করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি বাসায় ফেরার পথে পল্লবীর কালশীর পলাশনগরে অজ্ঞাত আততায়ীর হাতে নিহত হন শাহবাগ আন্দোলনের অন্যতম উদ্যোক্ত রাজীব হায়দার শোভন।

ব্লগারদের সিরিজ হত্যাকাণ্ডের পর এটিই প্রথম রায়। ব্লগার রাজীব হত্যার পর ফিল্মি কায়দায় একে একে ব্লগার নিলয়, অভিজিৎ, ওয়াশিকুর রহমান, অনন্ত ও সর্বশেষ ব্লগার অভিজিতের বই প্রকাশের অভিযোগে প্রকাশক দীপনকে হত্যা করা হয়েছে।



« (পূর্বের সংবাদ)