মেইন ম্যেনু

ব্ল্যাকহেডস দূর করুন ডিমের মাস্ক দিয়ে

পরিবেশ দূষণ ও স্ট্রেসের কারণে শহরে বসবাসকারী সব পূর্ণবয়স্ক মানুষেরই ত্বকের বিভিন্ন ধরণের সমস্যা যেমন – নিস্তেজ ত্বক, ব্রণ, ব্ল্যাকহেডস ও ডার্ক সার্কেল এর মত সমস্যাগুলোর মোকাবিলা করতে হয়। আর এই সমস্যাগুলোর সমাধানে বিভিন্ন ধরণের ঘরোয়া প্রতিকার ব্যবহার করা হয়। ব্ল্যাকহেডস দূর করার জন্য অনেকেই ফেসিয়াল করে থাকেন। কিন্তু ডারমাটোলজিস্টরা বলেন ফেসিয়াল আসলে ত্বকের ক্ষতি করে থাকে এবং ব্ল্যাকহেডসের অবস্থাও খারাপ করে থাকে। ব্ল্যাকহেডস দূর করার জন্য সহজ কিন্তু অনেক কার্যকরী একটি ঘরোয়া উপাদান হচ্ছে ডিমের সাদা অংশ। আসুন জেনে নিই ব্ল্যাকহেডস দূর করার জন্য ডিমের সাদা অংশের মাস্ক তৈরি ও ব্যবহার প্রণালী।

এই মাস্ক তৈরি ও লাগানোর জন্য যা যা লাগবে :

– এক কাপের ৪ ভাগের ৩ ভাগ পরিমাণ ডিমের সাদা অংশ

– একটি ফেস টিস্যু

– একটি ব্রাশ

যেভাবে তৈরি ও ব্যবহার করবেন :

১। প্রথমে একটি হালকা ক্লিঞ্জার ও উষ্ণ পানি দিয়ে মুখটি পরিষ্কার করে নিন।

২। তারপর মুখটি মুছে শুকিয়ে নিন। মুখে একটু ভাপ নিয়ে নিতে পারেন, এতে ত্বকের ছিদ্রগুলো উন্মুক্ত হয়।

৩। যদি ফেসিয়াল স্টিম নিয়ে থাকেন তাহলে আবার মুখটি মুছে নিন।

৪। ডিমের সাদা অংশ থেকে কুসুম আলাদা করে নিন। এবার ডিমের সাদা অংশটুকু খুব ভালো করে ফ্যাটিয়ে নিন।

৫। আপনি চাইলে এর সাথে লেবুর রস, মধু ও বেকিং সোডা মিশিয়ে নিতে পারেন। শুধুমাত্র ডিমের সাদা অংশ ও ব্যবহার করতে পারেন।

৬। ডিমের সাদা অংশ ত্বকের বিবর্ণতা দূর করতে সাহায্য করে। এর পুষ্টি উপাদান ত্বকের জন্য ভালো। ডিমের সাদা অংশ একটি ব্রাশে লাগিয়ে নাকের উপরে লাগান।

৭। এই লেয়ারটিকে শুকাতে দিন। কিছুটা ভেজা থাকা অবস্থায় নাকের উপর একটি টিস্যু লাগান যাতে ডিমের মাস্কের সাথে লেগে যায়। লক্ষ রাখুন যাতে টিস্যু নাকের উপর ভালোভাবে আটকে যায় এবং টিস্যু যেন ছিরে না যায় ও এর মধ্যে যেন কোন বাতাস ঢুকে না যায়।

৮। এবার টিস্যুর উপরে ডিমের মাস্কের আরেকটি প্রলেপ লাগান এবং ১৫-২০ মিনিট রাখুন।

৯। এই স্তরটি শুকিয়ে গেলে নাকের সাথে আঠার মত লেগে থাকবে টিস্যু।

১০। আস্তে আস্তে টিস্যুটি সরিয়ে আনুন। দেখবেন এর মধ্যে ব্ল্যাকহেডস ও অন্যান্য চটচটে ময়লা উঠে আসবে।

১১। এবার কুসুম গরম পানি ও ক্লিঞ্জার দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। মুখ মুছে নিয়ে ময়েশ্চারাইজার লাগান।

এই পদ্ধতিটি একবার করলেই হয়তো ম্যাজিকের মত সব ব্ল্যাকহেডস দূর হয়ে যাবেনা। তাই কয়েকদিন পর আবার এই মাস্ক লাগান। এভাবে সপ্তাহে কয়েকবার করলে সব ব্ল্যাকহেডস দূর হবে।