মেইন ম্যেনু

বড়াইগ্রামে ১৩ মাথাবিশিষ্ট খেজুর গাছ!

নাটোরের বড়াইগ্রামে একটি খেজুর গাছে একের পর এক ১৩ টি মাথা গজিয়েছে।

প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের ব্যত্যয় ঘটিয়ে এ গাছটি বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের রাজাকার মোড় থেকে আধা কিলোমিটার উত্তরে বড়াইগ্রাম ডি ইউ দাখিল মাদ্রাসার পাশে দাঁড়িয়ে আছে।

গাছের মালিক রমেছা বেওয়া বলেন, আগে গাছটিতে একটি মাথা ছিল। ওই গাছ থেকে ৪-৫ বছর রস সংগ্রহ করার পর এক এক করে মাথা গজাতে শুরু করে। গাছে এখন ১৩টি মাথা থাকলেও কোনটি থেকেই রস সংগ্রহ করা হয় না।

বড়াইগ্রাম ডি ইউ দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আবদুল মতিন জানান, প্রায় ১২-১৩ বছরের পুরনো গাছ এটি। প্রথমে গাছটির একটি মাথাই ছিল। পরে একে একে ১৪ টি মাথা গজায়। তার মধ্যে ২টি মাথা মরে যায়। পরো সর্ব ডানের মাথাটির শীর্ষভাগ বিভাজিত হয়ে আরও একটি মাথা গজায়।

কৃষিবিদ খয়ের উদ্দিন মোল্লা বলেন, উদ্ভিদের বর্ধিতাংশে এপিকাল টিস্যু থাকে। এ টিস্যু যদি ভেঙে যায় তাহলে সেখানে মিয়োসিস প্রক্রিয়ায় কোষ বিভাজিত হয়ে দুটি ডগা বা মাথার সৃষ্টি হয়। এক্ষেত্রে হয়তো একাধিকবার বিভাজন ঘটে থাকতে পারে।

মৌখাড়া ইসলামিয়া মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ লুৎফর রহমান বলেন, গাছটি প্রকৃতির অপূর্ব দান। এ বিচিত্র গাছটি দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন এখানে আসছে। তাই গাছটির সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া দরকার।-যুগান্তর