মেইন ম্যেনু

বড় আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন খালেদা

তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘আগুনসন্ত্রাসী ও জঙ্গিনেত্রী খালেদা জিয়া দম ফেলার চেষ্টা করছে, শক্তি সঞ্চয় করছে। একদিকে, গণতন্ত্রের জন্য মায়া করছে, অন্যদিকে কৌশল পাল্টিয়ে চূড়ান্ত আক্রমণ হানার চেষ্টা করছে। আরও বড় আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে তিনি এসব কথা বলেন।

ইনু বলেন, ‘যুদ্ধ পরিস্থিতি চলছে। খালেদা পিছু হটায়, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলায় আপাতত মনে হতে পারে যে পরিস্থিতি শান্ত। কিন্তু বিএনপি ও খালেদা এখনো ক্ষমা চায়নি, আত্মসমর্পন করেনি, তওবা করেনি। তাই বিপদ রয়েই গেছি। ওপরে ওপরে পরিস্থিতি শান্ত হলেও, যুদ্ধ ও সঙ্কট রয়েই গেছে।’

তিনি বলেন, ‘জঙ্গিবাদের পাহারাদার খালেদা জিয়াকে রাজনীতি থেকে বিদায় করতে শেষ যুদ্ধটি আমাদের করতে হবে। যারা জেনেবুঝে মিটমাটের কথা বলছেন, তারা আগুনসন্ত্রাসীদের বাংলাদেশের রাজনীতিতে জায়গা দেয়ার চক্রান্ত করছেন। কিন্তু পরিত্যক্ত রাজনৈতিক আবর্জনা, বর্জ্য, উপরি দেশের আবর্জনা, সামরিক শাসনের আবর্জনা, সাম্প্রদায়িক আবর্জনা প্রমাণ করতে চায় বাংলাদেশের গণতন্ত্র শক্তিশালী হয়নি। বরং দুর্গন্ধ ছড়িয়েছে, সুযোগ পেলেই ছোবল মেরেছে।’

এসময় তিনি খালেদা জিয়াকে ‘জঙ্গি পুনরুৎপাদনের কারখানা’ ও ‘জঙ্গি লালনকারীর মাতা’ আখ্যা দিয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশকে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্র এখনো চলছে। তাই এদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয়ী হতেই হবে।’

সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে আরও বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, চীনের রাষ্ট্রদূত মা কু মিং, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া, কার্যকরী সদস্য ও সাংসদ মাইনুদ্দিন খান বাদল, জাসদের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক রবিউল আলম, যুগ্ম-আহ্বায়ক নাজমুল হক প্রধান ও শিরীন আকতার প্রমুখ।

জাসদের সম্মেলন উপলক্ষে পিপলস লিবারেল ফ্রন্ট শ্রীলংকা, ভারতের অল ইন্ডিয়া ফরোয়ার্ড ব্লক ও নেপালের রাষ্ট্রদূত শুভেচ্ছা জানিয়েছে।