মেইন ম্যেনু

বড় পর্দায় শিগগিরই আসছি না

মিডিয়ায় সাফা কবিরের সম্পৃক্ততা বিজ্ঞাপন নির্মাতা আদনান আল রাজীবের হাত ধরে। তারই নির্দেশনায় প্রথম অভিনয় করেন ‘অ্যাট এইটিন অলটাইম দৌড়ের ওপর’ নাটকে। এরপর কাজ করেছেন আতিক জামান পরিচালিত ‘একা মেয়ে’ ও পরিচালক রেদোয়ান রনির ‘ভালাবাসা ১০১’র মতো জনপ্রিয় নাটকে। দেশের খ্যাতিমান বিজ্ঞাপন নির্মাতা অমিতাভ রেজা, আশফাক বিপুলসহ আরও অনেকের সঙ্গে কাজ করেছেন।

বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি তিনি ব্যস্ত সময় পার করছেন অভিনয় ও উপস্থাপনায়ও। আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে বিবিএ পড়া সাফা কবির অভিনয় কিংবা মডেলিং করবেন এমনটা কখনোই ভাবেননি। অভিনয় শুরুর আগে কখনো ক্যামেরার সামনেও দাঁড়াননি তিনি। তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সৈয়দ ঋয়াদ

আপনার আসল নাম তো ‘আনাটনী কেলী’। এই নামের রহস্যটা বলবেন?

আমার বাবা জার্মানপ্রবাসী। আমার জন্মের সময় বাবা তখন ব্যবসার কাজে রাশিয়া ছিলেন। ওই সময় আমার দাদা আমার নাম রাখেন ‘আনাটনী কেলী’। মিডিয়াতে আমি তো সাফা কবিরই।

পড়াশোনা আর কাজ, কীভাবে ম্যানেজ করেন?

এখন পর্যন্ত ভার্সিটির পরীক্ষা বা ক্লাস বাদ দিয়ে কাজ করিনি। পরীক্ষা বা গুরুত্বপূর্ণ ক্লাসের সময় অনেক বড় বড় কাজের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছি। অনেক সময় ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও ভালো কাজ হাতে নিতে পারিনি। আমি বিশ্বাস করি শিক্ষার বিকল্প নেই, তাই এখানে কোনো রকম ফাঁকি দিতে চাই না।

কাজের ক্ষেত্রে আপনার অনুপ্রেরণা কে?

আমাদের দেশের সবার কাজই ভালো লাগে, আর সবার কাছ থেকেই কিছু না কিছু শেখার আছে। আমি চেষ্টা করি সবার বেস্টটা গ্রহণ করতে। তিশা আপুর অভিনয় অনেক ভালো লাগে। তার অভিনয় আমাকে সত্যি অনুপ্রাণিত করে।

ফ্যানপেইজে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের মধ্যে আপনি অন্যতম, বিষয়টা কীভাবে দেখেন?

আমি বিষয়টা এভাবে ভাবি না। আমার মনে হয় তারা আমার কাজকেই পছন্দ করেছে। এটা তো আমার জন্য সৌভাগ্য যে, দর্শকরা আমার কাজকে ভালোভাবে গ্রহণ করছে। এতে করে একটি সমস্যা হয়, সেটা হলো ভালো কাজ করার দায়িত্বটা বেড়ে যায়।

বড় পর্দায় কাজ করার কোনো পরিকল্পনা আছে?

বড় পর্দায় কাজ করব এই ইচ্ছাটা তো অবশ্যই আছে। তবে সেটা খুব শিগগিরই হচ্ছে না। এখনও তো নতুনই আমি। আগে ছোট পর্দায় আরও কাজ করে নিজেকে প্রস্তুত করে নিই। তারপর সুযোগ পেলেই বড় পর্দায় যাব, এর আগে নয়।

উপস্থাপনা কেমন লাগে?

উপস্থাপনাটা আমি অনেক উপভোগ করি। ছোটদের নিয়ে অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করে বেশ উপভোগ করেছিলাম। সামনে এ ধরনের ভালো কাজের সুযোগ পেলে অবশ্যই উপস্থাপনায় আসব।

প্রিয় অভিনেত্রী?

ছোটবেলা থেকে অনেকের অভিনয় দেখেই বড় হয়েছি। তাই সবার অভিনয়েরই ভক্ত আমি। বিশেষ করি যদি বলি তা হলে সুবর্ণা মুস্তাফা, তিশা, তাহসান, রণবীর সিং ও আলিয়া ভাট।

কী খেতে পছন্দ করেন?

পছন্দের খাবারের তালিকাটা খুব ছোট নয়। তবে সাদামাটা খাবারেই অভ্যস্ত আমি। প্রিয় খাবারের তালিকায় মাছ-ভাত। তবে ভুনা খিচুড়ি, তেহারি, চায়নিজ ও পিৎজা মাঝেমধ্যে ভালো লাগে।

পছন্দের পোশাক?

পছন্দের পোশাক জিনস, টি-শার্ট হলেও বিশেষ দিনগুলোতে কাতান শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ পরতেও ভালো লাগে।

প্রিয় সংগীতশিল্পী?

প্রিয় সংগীতশিল্পী ভারতের অরিজিৎ সিং, বাংলাদেশের তাহসান, এলিটা। মাঝেমধ্যে কোল্ড প্লের গান শুনে থাকি।

কিসে বিরক্ত লাগে?

যখন কাউকে কিছু বোঝাতে চাই কিন্তু বোঝাতে পারি না তখন খুব বিরক্ত লাগে। আরেকটা জায়গায় খুব বিরক্ত হই, যখন সঠিক সময়ে শুটিং স্পটে পৌঁছানোর পরও কাজ শুরু না হলে।