মেইন ম্যেনু

বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করে এখন বিপাকে এই সুন্দরী

আপাতত, আত্মগোপন করে থাকতে চাইছেন দিব্যা ফাউজা। তিনি এমন এক কাণ্ডে সামিল হয়েছিলেন বলে অভিযোগ যাকে অপরাধ বলেই মনে করছে আদালত। কী করেছেন দিব্যা? শুনলে অবাক হয়ে যাবেন।

বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করার অভিযোগ উঠেছে দিব্যার বিরুদ্ধে। দাবি করা হচ্ছে, দিব্যা এমনই তাঁর রূপের জাল ফেলেছিলেন যে সেই ফাঁদে পা দিয়ে প্রাণ গিয়েছে তাঁর বয়ফ্রেন্ডের।

আসলে দিব্যার বয়ফ্রেন্ড তো এমন কোনও ব্যক্তি নয় মুম্বইয়ের গ্যাংগস্টার সন্দীপ গাডোলি। দীর্ঘদিন থেকেই গুরগাঁও পুলিশ সন্দীপের পিছনে পড়েছিল। গুরগাঁও-এর মেয়ে দিব্যা সন্দীপের গার্লফ্রেন্ড জানতে পেরে আসরে নামে গুরগাঁও পুলিশ। মুম্বইয়ের এক হোটেলে দিব্যাকে দিয়ে সন্দীপকে ডেকে পাঠানো হয়। সন্দীপের সঙ্গে সবসময় আগ্নেয়াস্ত্র থাকত। অভিযোগ, হোটেলের ঘরে দিব্যা তাঁর রূপের মোহে সন্দীপের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র সরিয়ে নেন। এর পরে গুরগাঁও পুলিশের পাঁচ সদস্য গুলি করে হত্যা করেন সন্দীপকে।

সন্দীপের পরিবারের দায়ের করা অভিযোগে মুম্বই আদালত গোটা ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে এবং এটাকে ফেক এনকাউন্টার বলে ব্যাখ্যা করেছে। মুম্বই পুলিশ ইতিমধ্যে সিট তৈরি করে এই ঘটনায় গুরগাঁও-এর এক সাব-ইনস্পেক্টরকে গ্রেফতার করেছে। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি চলছে। গ্রেফতার করার জন্য সন্দীপের গার্লফ্রেন্ড দিব্যার পিছনেও ঘুরছে পুলিশ।

যদিও, দিব্যার দাবি, তিনি নির্দোষ। হোটেলের ঘরে তিনি সন্দীপের সঙ্গে ছিলেন। তবে, সন্দীপ যে গ্যাংগস্টার এবং পুলিশ যে পিছনে পড়ে রয়েছে তা নাকি দিব্যা জানতেন না।