মেইন ম্যেনু

ভবিষ্যতের বিলাসবহুল গাড়ি [ভিডিও]

যুক্তরাষ্ট্রের গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান লিংকন স্পোর্টস ইউটিলিটি ভেহিক্যাল (এসইউভি) ক্যাটাগরিতে নতুন একটি কনসেপ্ট গাড়ির ছবি এবং ভিডিও প্রকাশ করেছে। নতুন এই কনসেপ্ট গাড়িতে পরবর্তী প্রজন্মের আধুনিকতার সাথে চোখ ধাঁধানো ফিচার যে কারো নজর কাড়বেই। গাড়িটির মডেলের নাম নেভিগেটর।

নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত অটো শোতে লিংকনের প্রেসিডেন্ট কুমার গালহোত্রা বলেন, ‘এই গাড়িটি ডিজাইন করা ডিজাইনারদের জন্য চ্যালেঞ্জের ছিল। ডিজাইনের ভাষা ছিল মার্জিত সৌন্দর্য্য। এ ধরণের গাড়িতে মার্জিত সৌন্দর্য্য আনাটা বেশ মজার।’

লিংকনের এই নতুন মডেলের গাড়িটিকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে হবে লেক্সাস, ইনফিনিটি এবং কার্ডিলাকের নতুন ডিজাইনের বিলাসবহুল গাড়ি গুলোর সাথে।

লিংকনের প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, ‘এলিগ্যান্স অ্যান্ড বিউটি’ গাড়ির বাইরের সৌন্দর্য্যের জন্য আর ‘সেরেনিটি অ্যান্ড হারমনি’ গাড়ির ভেতরে নিশ্চিত আরামের জন্য।’ মোটকথা মার্জিত সৌন্দর্য্যে প্রশান্তি এবং সম্প্রীতিতে আসছে আগামীর বিলাসবহুল গাড়ি। আর নেভিগেটরের হচ্ছে ভবিষ্যত প্রজন্মের উত্তম উদাহরণ।

নেভিগেটর গাড়িতে চালক ব্যতীত সব যাত্রীর জন্যই রয়েছে বৃহৎ স্ক্রিনের ডিসপ্লে। এই স্ক্রিন গুলোতে যাত্রীরা নিজেদের সাথে গেম প্রতিযোগিতাও করতে পারবে। প্রত্যেক স্ক্রিনে আলাদা আলাদা মুভি দেখার অথবা সব স্ক্রিনে একই মুভি দেখার ব্যবস্থাও রয়েছে। কার প্লে নামে একটি বিল্ট ইন সফটওয়্যার রয়েছে এই গাড়িতে। গাড়িটিতে রয়েছে ইন্টারকম ব্যবস্থা। পেছনের সিটে বসে সামনের সিটের সাথে সহজেই যোগাযোগ করা যাবে ইন্টারকম ফোন দিয়ে।

এমনকি এই গাড়িতে ভিডিও চ্যাটিং ব্যবস্থাও রয়েছে। পেছনে বসে গাড়ির চালককে লাইভ দেখার সুযোগ রয়েছে। দুর্বল চিত্তের শিশুদের জন্য তাদের চালক মাকে দেখার এ এক অনন্য উপায়। এই গাড়ির দরজায় রয়েছে স্বতন্ত্র ডিজাইন। যা অন্য কোন গাড়ি থেকে নেভিগেটরের দরজা খোলার আলাদা অনুভূতি দেবে। তাছাড়া গাড়িতে পার্কিং সিড়িও আছে।

গাড়ির পেছনের অংশে ব্যাক ডালার ভেতরে একজন মানুষের দৈনন্দিন যা জিনিসপত্র দরকার তা আলাদা আলাদা করে রাখার সুবিধা রয়েছে।

আগামী বছরের মধ্যে এই গাড়ি বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে গাড়ি নির্মাণের সব পদক্ষেপ সম্পন্ন হওয়ার আগে গাড়ির মূল্য চূড়ান্তভাবে কত হবে তা এখনো নির্দিষ্ট হয় নি।

গাড়িটির ভিডিও দেখুন:



(পরের সংবাদ) »