মেইন ম্যেনু

ঈদের পরে লাগাতার আন্দোলন

ভর্তি পরীক্ষা বর্জনের হুমকি শিক্ষকদের

দাবি মানা না হলে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা বর্জনের হুমকি দিযেছে শিক্ষকরা। তারা বলছেন, সরকার যদি অবিলম্বে শিক্ষকদের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো ও মর্যাদার বিষয়ে কার্যকরি উদ্যোগ না নেয় তাহলে তারা আসন্ন ভর্তি পরীক্ষা বর্জন করবেন।

আজ বৃহস্পতিবার সারা দেশে ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করেছে শিক্ষকরা। এসময় অবস্থান কর্মসূচিও পালন করেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ এবং মহাসচিব অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে যৌক্তিক দাবিসমূহ পূরণের লক্ষ্যে সরকারের পক্ষ থেকে আলোচনার কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া না হলে ঈদের পর লাগাতার কর্মবিরতির আল্টিমেটাম দিয়েছেন।

বিবৃতিতে বেতন বৈষম্য নিরসন কমিটির প্রধান হিসেবে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের স্থলে ‘সর্বজন গ্রহণযোগ্য জনপ্রতিনিধিকে’ বসানোর দাবিও জানান তারা।

এতে বলা হয়, সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশিত অর্থমন্ত্রীর কথায় মনে হয়েছে, তিনি সাধারণ জনগণের প্রতিনিধি নন-আমলাদের প্রতিনিধি। সুতরাং তার কাছ থেকে শিক্ষকরা সুবিচার পাবেন বলে আমরা মনে করি না।

এদিকে ঘোষিত অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূর না হওয়া, শিক্ষকদের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো গঠনে কমিশন ঘোষণা এবং শিক্ষকদের মর্যাদার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো প্রস্তাব এখনও পর্যন্ত না আসায় বৃহস্পতিবার সকল পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে পূর্ণদিবস সর্বাত্মক কর্মবিরতি পালন করেন শিক্ষকরা।

পাশাপাশি বেলা ১১টা থেকে ১টা পর্যন্ত প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত স্থানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়।