মেইন ম্যেনু

প্রচ্ছদে নেই শহীদ মিনার, মুক্তিযুদ্ধের চিত্র

সিরিয়ালের নায়ক-নায়িকারা শিক্ষার্থীদের খাতায়

তুমি আসবে বলে, বোঝেনা সে বোঝেনা, ইষ্টি কুটুম এ সমস্ত ছবি দিয়ে শিশু শিক্ষার্থীদের খাতা বিক্রি হচ্ছে বাজারে। পোশাক পরিচ্ছেদের পর এবার ভারতীয়, কলকাতার সিরিয়ালের প্রভাব পড়েছে বাংলাদের শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার খাতায়। রাজশাহী তানোর উপজেলায় পাঠ্যপুস্তকের সঙ্গে স্কুল শিক্ষার্থীদের হাতে সোভা পাচ্ছে ভারতীয় কোলকাতার সিরিয়ালের নায়ক নায়িকাদের ছবি সংবলিত মলাটের খাতা। আর বিক্রি হচ্ছে দেদারসে। বিক্রেতারা জানালে, এসব খাতা শিশু থেকে শুরু করে স্কুল শিক্ষার্থীদের কাছে বিক্রি করাটা দৃষ্টি কোটু হলেও এর চাহিদা ভালো। তাই তারা বিক্রি করছেন।

শিক্ষক ও অভিভাকেরা জানায়, মায়েরা কলকাতার চ্যানেলের সিরিয়ালের প্রতি আসক্ত হওয়ায় শিশু শিক্ষার্থীরাও এতে আসক্ত হচ্ছে এরই প্রভাব পড়েছে খাতায়। মায়েরা কলকাতার চ্যানেলের সিরিয়াল তুমি আসবে বলে, জলনুপুর, তোমায় আমায় মিলে, কিরণমালা, বোঝেনা সে বোঝেনা এসব সিরিয়াল গুলো তারা দেখেন।

তানোর উপজেলার বিভিন্ন প্রকাশির দোকান ঘুরে দেখা যায় জলনুপুর, তোমায় আমায় মিলে, কিরণমালা, বোঝেনা সে বোঝেনা এসব সিরিয়ালের প্রধান চরিত্রের অভিনেতা ও অভিনেত্রী বড় বড় ছবি রয়েছে খাতার মলাটে।

আর পাশেই কিংবা নিচে লিখা রয়েছে রূপ কথার রাজকন্যাসহ বিভিন্ন কথোকপথন। মলাটের নিচের অংশে রাখা হয়েছে শিক্ষার্থীদের নাম, বিদ্যালয়ের নাম, শ্রেণির, শাখা, বিষয় এবং রোল লেখার জায়গা। একই ভাবে বিভিন্ন সিরিয়ালের প্রধান প্রধান যেসব অভিনেতারা মন কেড়েছেন খাতার মলাটে সোভা পাচ্ছে এসব ছবি।

সম্প্রতি উপজেলার বেশ কয়েকটি বই খাতার দোকান ঘুরে দেখা গেছে, এসব খাতা গুলোর চাহিদা ভোল আর সে কারণে বিক্রি হচ্ছে বেশি। স্কুল শিক্ষার্থীরা জানায়, দোকানদারের কাছে মাত্র দুটি সিরিয়ালের খাতা আছে। ওই শিক্ষার্থী ত্রিশ টাকা দিয়ে জলনুপুর সিরিয়ালের ছবি সংবলিত খাতা কেনেন।

কয়েকজন বিক্রেতা বলেন, সবে মাত্র তানোর উপজেলার বিভিন্ন দোকানে এসব সিরিয়ালের ছবি সংবলিত খাতা নেমেছে। তবে চাহিদা মোটামুটি ভালো।

শুধু তাই নয়, শাতে আছে আরো কিরণমালা, বোঝেনা সে বোঝেনা, ইষ্টি কুটুম, ঠিক যেন লাভ স্টোরী, চোখের তারা তুই, জলনুপুর, তুমি আসবে বলে, বধূবরণ, সবচরিত্র কাল্পনিক তুবও মন কেড়েছে বাঙালি সব গ্রাম অঞ্চলের নারীদের।

এ বিষয়ে বেশ কয়েকজন প্রধান শিক্ষক বলেন, এখনকার শিক্ষার্থীরা দেশের কবি, সাহিত্যিকদের চেনে না। এরা সিরিয়ালের অসুস্থ বিনোদনে অভ্যস্ত হয়ে হিংসা, পরশ্রীকাতরতা শিখছেন। খাতা প্রস্তুতকারীরা বিক্রি বাড়ানোর জন্য জেনে শুনেই সিরিয়ালের নায়ক নায়িকাদের ছবি ব্যবহার করছেন।

বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষক বকুল হোসেন ও তানোর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক মাইনুল হোসেন বলেন, তারা এসব ব্যাপারে কোন কিছু জানা নেয়। যদি বাজারে এসব খাতা বিক্রি করা হয় তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। আর শিক্ষার্থীদের এসব খাতা নেওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। আগে খাতার মলাটে শহীদ মিনার, বাংলাদেশ মানচিত্র, জাতীয় স্মৃতিশোধ, মুক্তিযুদ্ধ, গ্রাম বাংলার এবং কবি সাহিত্যিকের ছবি দিয়ে করা প্রচ্ছদের খাতা ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বদীউজ্জামান বলেন, এসব সিরিয়ালের খাতার ব্যাপারে কোন কিছু জানা নেয় আমার। তবে এসব সিরিয়ালের ছবি সংবলিত খাতা ব্যবহার করা হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুনীরুজ্জামান ভূঁঞা বলেন, এসব ছবি সংবলিত খাতা বাজারে এসেছে আমার জানা নেয়, যদি কোন প্রকাশনী বা দোকানী এসব খাতা বিক্রি করেন তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরো বলেন, এইসব সিরিয়ালের ব্যাপারে বিশেষ করে মায়েদের সচেতন হতে হবে। যাতে করে পড়ালেখা বাদ দিয়ে কোন ভাবেই ছেলেমেয়েরা এসব সিরিয়ালের প্রতি আসক্ত না হতে পারে বলেন জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বোঝেনা সে বোঝেনা সিরিয়ালে পাখি চরিত্রে অভিনয়কারীর পোশাক (পাখি ড্রেসে) আকৃষ্ট হয়ে কিনতে না পেরে দেশের একাধিক স্থানে কিশোরীরা আত্মহত্যার ঘটনাও ঘটিয়েছিল। পাশাপাশি এসব সিরিয়াল দেখা নিয়ে অনেক পরিবারে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া, বিবাদ লেগেই থাকে।

এ পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৭ আগষ্ট বাংলাদেশের ভারতীয় কলকাতার তিনটি টিভি চ্যানেল স্টার জলসা, স্টার প্লাস ও জি বাংলার, সম্প্রচার বন্ধের ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের নির্দিষ্ট শাখায় রিট করেন একজন আইনজীবী।