মেইন ম্যেনু

ভারতের জেলে বন্দী বিদেশিদের অর্ধেকই বাংলাদেশী

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের জেলগুলিতে থাকা বিদেশী বন্দীদের অর্ধেকই বাংলাদেশী। ভারতের ন্যাশানাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর সর্বশেষ প্রকাশিত পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, ভারতের জেলে এই মুহূর্তে ছয় হাজারের বেশি বিদেশী বন্দী রয়েছে।

আর এই বন্দীদের প্রায় অর্ধেকই বাংলাদেশী। তবে বন্দী বাংলাদেশীদের অধিকাংশ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলে বন্দী থাকলেও ভারতের অন্যান্য রাজ্যের জেলেও রয়েছেন বেশ কিছু বাংলাদেশী বন্দী।

ব্যুরোর পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গের জেলেই রয়েছে সবচেয়ে বেশি বিদেশী বন্দী। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের জেলগুলিতে ২৯৩৫ জন বিদেশী বন্দী রয়েছেন। এই বন্দীদের মধ্যে অধিকাংশই বাংলাদেশী। শতাধিক রোহিঙ্গা ছাড়াও কয়েকজন নাইজেরিয়া, মায়ানমার, ইউক্রাইন ও লেসেথোর বন্দী রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের জেলে।

এদের মধ্যে ১১১৩ জনের সাজা হয়েছে। বাকীদের বিচার চলছে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে বিচার চলছে কয়েক বছর ধরে। পশ্চিমবঙ্গের কারা দপ্তর সুত্রে জানা গেছে, সাজাপ্রাপ্ত বিদেশি বন্দীদের মধ্যে ৩২০ জনের সাজার মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে।

তবে পশ্চিমবঙ্গের জেলে থাকা ৩১৪ জন বাংলাদেশির বিচারের সাজা শেষ হয়ে গেলেও তারা দেশে ফিরে যেতে পারেন নি নানা লাল সুতার ফাঁসে। অনেকে বছরের পর বছর ধওে জেলের কুঠরিতে অনিশ্চিত জীবন কাটাচ্ছেণ।

এই সব জানখালাস বাংলাদেশি বন্দীরা মাঝে মাঝেই অনশনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানালেও তাদেও দেশে ফেরার পথ একনও নিশ্চিত হয় নি। বাংলপাদেশ সরকারের সঙ্গে ভারতের বন্দী বিনিময় চুক্তি স্বাক্ষরিত হলেও এখনও পর্যন্ত তা কার্যকর না হওয়াতেই ভারতের জেলে বাংলাদেশি বন্দীরা অনিশ্চয়তায় দিন কাটাচ্ছেন।

ভারতে আটক বাংলাদেশী বন্দীদেও প্রায় সকলের বিরুদ্ধেই অভেধভাবে ভারতে প্রবেশের মামলা চলছে বলে জানা গেছে। তবে মামলার দীর্ঘ সূত্রতার কারণে পশ্চিমবঙ্গের জেলে বাংলাদেশী বন্দীর সংখ্যা প্রতিদিন বেড়েই চলেছে বলে জানা গেছে।