মেইন ম্যেনু

ভারতে থাকতে হলে গোমাংস ত্যাগ করতেই হবে

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খাত্তার বলেছেন, মুসলমানরা ভারতে থাকতে পারবে, তবে তাদেরকে অবশ্যই গরুর মাংস খাওয়া ছাড়তে হবে।

গরুর মাংস খাওয়া নিয়ে জম্মু কাশ্মিরের বিধান সভায় এক সাংসদকে মারধর এবং উত্তর প্রদেশে এক মুসলিমকে পিটিয়ে হত্যার পর এই নিয়ে যখন ভারতজুড়ে শোরগোল চলছে ঠিক তখনই মনোহর লাল এই উস্কানিমূলক বক্তব্যটি দিলেন।

ভারতের বহুল প্রচারিত ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন, মুসলমানদের ভারতে থাকার ব্যাপারে আমার কোনো আপত্তি নেই। তবে তাদেরকে অবশ্যই গোমাংস ত্যাগ করতে হবে।

৬১ বছর বয়সী খাত্তার হচ্ছেন হরিয়ানায় বিজেপি সমর্থিত প্রথম সরকার প্রধান, যিনি ভারতের কট্টর হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির ধারক রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের আদর্শে বিশ্বাসী।

তার এই মন্তব্যের পর ভারতজুড়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। কংগ্রেস নেতা রশিদ আলভি বলেছেন, এটা মুসলমানদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক একটি বক্তব্য। এরপর মুখ্যমন্ত্রী পদে থাকার কোনো অধিকার তার নেই।

দিল্লি শাসক দল আম আদমি পার্টির নেতা আশুতোষও একই বক্তব্য দিয়েছেন। এক টুইটে তিনি বলেছেন, “তিনি হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী। নাম তার এম এল খাত্তার। তিনি শুধু আরএসএস এর পুস্তকসমূহ পাঠ করেছেন। সংবিধানের ধারেকাছেও তিনি যাননি। তার জ্ঞানের পরিধি নিয়ে আমার করুণা হয়।”

ভারতজুড়ে তীব্র সমালোচনার পর অবশ্য মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এই বক্তব্যের একটি ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে। তাতে দাবি করা হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে।