মেইন ম্যেনু

ভারতে না যাওয়া বিলুপ্ত ছিটের অধিবাসীদের মতামত নিলেন ভারতীয় প্রতিনিধি দল

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলায় বিলুপ্ত ছিটমহলে ভারতীয় ট্রাভেল পাস নিয়েও ভারতে না যাওয়ার ৬০ জন নারী পুরুষ ও শিশুদের মতামত জানতে ভারতীয় হাই কমিশনের একটি প্রতিনিধি দল দিনভর দাসিয়ারছড়ায় অবস্থান করেন।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় অধুনালুপ্ত ছিটমহল দাসিয়ারছড়ার কালিরহাট কমিউনিটি সেন্টারে এই মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ভারতীয় প্রতিনিধি দলে উপস্থিত ছিলেন ভারতীয় জনগননার অতিরিক্ত নিবন্ধক এস কে চক্রবর্তি, ভারতীয় সহকারী স্বরাষ্ট্র সচিব এমএস ইফশিতা শাহা পাল, কলকাতা সচিবালয়ের শাখা প্রধান এমএস কাজারী বিশ্বাস, বাংলাদেশে নিযুক্ত সহকারী হাই কমিশনার অভিজিৎ চট্রোপ্যাধায় রাজশাহী, ভারতীয় হাইকমিশন ঢাকার প্রথম সচিব রমাকান্ত গুপ্ত, রাজশাহী হাই কমিশনের সহকারী এ্যাটাসে অভিজিৎ মিত্ত। বাংলাদেশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নবী নেওয়াজ, পিপি এ্যড.এসএম আব্রাহাম লিংকন, ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ এবিএম রেজাউল ইসলাম, বিলুপ্ত বাংলাদেশ ভারত ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির নেতা মইনুল হক, গোলাম মোস্তফা, আলতাফ হোসেন প্রমুখ।

ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও জানান, গত বছরের ৬ জুলাই থেকে ১৬ জুলাই জনগনণায় এ ছিটের বাসিন্দা ৭ হাজার ৬৯ জনের মধ্যে ভারতে যাওয়ার জন্য মতামত জরিপ ফরম পূরণ করেন ৩১৭ জন। এর মধ্যে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকের বরাবরে ১১/১০/১৫ এবং ২৯/১০/১৫ তারিখে দাসিয়ারছড়ার ৬০ জন অধিবাসী জন্ম ভূমিতে থেকে যাওয়ার জন্য লিখিত আবেদন করেন। পরবর্তিতে ৩ দফায় ২৫৭ জন দাসিয়ারছড়ার অধিবাসী ট্রাভেল পাস নিয়ে ভারতে চলে গেলেও অবশিষ্ট ৬০জন ভারতে না যাওয়ার কারণে ভারতীয় প্রতিনিধি দল তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করতে আসেন। কিন্তু ইতি মধ্যে এক জনের মৃত্যু হয়েছে। আর ৫জন এ মতবিনিময় সভায় অনুপস্থিত ছিলেন। অবশিষ্ট ৫৪জন ভারতীয় প্রতিনিধি দলকে ভারতে না যাওয়ার ব্যাপারে তাদের মতামত পুন:ব্যক্ত করেন।

এ ব্যাপারে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার অভিজিৎ চট্রোপাধ্যায় জানান, যারা যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে আবেদন করেছেন তাদের মতামত নেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে বাদল, হাজিরন, হেলাল, কল্পনা ও তানজিনা নামের ৫ জন দাসিয়ারছড়ার অধিবাসী উপস্থিত না থাকায় তাদের সম্পর্কে ভারতীয় প্রতিনিধি দল কোন মতামত নিতে পারেনি। পরবর্তিতে দু’দেশের সরকার আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিবেন তাদের নাগরিকত্ব বিষয়টি।

পরে ৬ সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধি দলটি বিকালে পঞ্চগড় জেলার উদ্যেশ্যে কুড়িগ্রাম ত্যাগ করে।



(পরের সংবাদ) »