মেইন ম্যেনু

ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা: নিহত ৩, কারফিউ জারি

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে গত দুইদিন ধরে চলা সহিংস সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় এ পর্যন্ত মারা গেছে তিনজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাজ্যটিতে সেনা মোতায়েন করে কারফিউ জারি করা হয়েছে। সেই সাথে ‘দেখা মাত্র গুলি’র নির্দেশ দেয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে।

বিবিসি জানিয়েছে, ‘জাত’ সম্প্রদায়কে কেন্দ্র করে ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য হরিয়ানাতে চলা ওই সহিংসতায় তিনজন নিহত হওয়া ছাড়াও এ পর্যন্ত আহত হয়েছে আরো ৮০ জন। সম্প্রতি জাত সম্প্রদায়কে ভারতের উচ্চবর্ণ সম্প্রদায় হিসেবে সরকার তালিকাভুক্ত করলেও অন্যান্য উচ্চবর্ণ সম্প্রদায়ের মতো সরকারি চাকরিতে তাদের সমান কোটা দেয়া হয়নি। এর প্রতিবাদ জানিয়ে বিক্ষোভ করে সম্প্রদায়টি।

শুক্রবার নিম্নবর্ণের সম্প্রদায়গুলো হরিয়ানা রাজ্যের রোহতক শহরে বিক্ষোভের সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোড়ে, রাস্তা অবরোধ করে, যানবাহনে আক্রমণ করে এবং অর্থমন্ত্রীর বাসভবনে আগুন দেয়ার চেষ্টা করে। ওই সময় পুলিশের গুলিতে এক প্রতিবাদকারী নিহত হলে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।

শনিবারও আন্দোলন চলছে। একটি রেলওয়ে স্টেশনে স্টেশন মাস্টারের কার্যালয় ভেঙে দিয়েছে প্রতিবাদকারীরা। স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধিরা বিক্ষোভকারীদের সাথে কথা বলেও আন্দোলন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি।

এদিকে জাত সম্প্রদায়ের আন্দোলকারীদের নেতা ইয়াশপাল মালিক বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, সরকার আমাদের দাবি পূরণ করলেই শুধু আন্দোলন বন্ধ হবে।’

বর্ণবৈষম্য কমাতে ভারত সরকার নিম্নবর্ণের লোকদের চাকরিতে আনুপাতিক হারে কোটা নির্ধারণ করে দিয়েছে। তবে জাত সম্প্রদায়ের নেতাদের ভাষ্য, বর্তমান কোটা পদ্ধতি তাদের সরকারি চাকরি এবং রাষ্ট্র-পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে চাকরির ক্ষেত্রে সমস্যায় ফেলেছে

উল্লেখ্য, জাত সম্প্রদায় প্রধানত ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ হরিয়ানা, পাঞ্জাব, দিল্লি এবং রাজস্থানের বাসিন্দা। এছাড়া পাকিস্তানের পাঞ্জাব ও ‍সিন্ধুতেও সম্প্রদায়টির কিছু লোক বসবাস করে আসছে। এরা মূলত কৃষক সম্প্রদায়ের লোক। সম্প্রদায়টিতে হিন্দু, মুসলিম এবং শিখ- এই তিন ধর্মের অনুসারীই আছে।