মেইন ম্যেনু

ভালবাসা সম্পর্কে এ কী বললেন হৃতিক!

ভালবাসা আসলে বিভ্রম। ভালবাসা সম্পর্কে যা দেখা যায়, শোনা যায়, বাস্তবে তা নেই। তবে রোমান্স মিটে গেলে যে প্রেম থেকে যায়, তা বিভ্রম বা মোহ নয়। তা বাস্তব। কোনও দার্শনিক নন, হৃতিক রোশন বলেছেন এ কথা। বিয়ে ও প্রেমের ক্ষেত্রে একের পর এক ব্যর্থতা সম্ভবত তাঁকে জীবনকে অন্য চোখে দেখতে শিখিয়েছে।

দুই ছেলের বাবা হৃতিক জানিয়েছেন, তিনি চান, ছেলেরা নিজেদের জীবন থেকে অভিজ্ঞতা সংগ্রহ করুক। তবে তাদের কাজের ভাল আর মন্দ দিক তিনি ব্যাখ্যা করেন তাদের কাছে। কিন্তু নিজেদের রাস্তা তাদের নিজেদেরই বেছে নিতে হবে, পড়তে হবে, আবার উঠে দাঁড়াতে হবে। চালিয়ে যেতে হবে হাঁটা। তারা কোনও কিছু চেষ্টা করারই সুযোগ পেল না, এমনটা যেন না হয়।

দুই ছেলেই ভীষণ ভালবাসে বাবাকে। তাঁকে খুশি দেখার জন্য তাদের চেষ্টার অন্ত নেই। হৃতিক জানাচ্ছেন, ‘মহেঞ্জোদড়ো’ থেকে তারা এসে তাঁকে বলেছিল, বাবা ছবিটা ভাল হয়েছে। বোধহয় ততদিনে তারা জেনে গিয়েছিল, ছবিটা বক্স অফিসে ভাল করছে না। কিন্তু তাঁকে সন্তুষ্ট করার জন্য ও কথা বলেছিল তাঁর দুই বালক পুত্র।

তবে ‘কাবিল’ দেখে তারা ১০-এর মধ্যে ৮.৫ রেটিং দিয়েছে বলে জানিয়েছেন গর্বিত পিতা।

‘কাবিল’ মুক্তি পাবে ২৫ তারিখ, ‘রইস’-এরও মুক্তি ওইদিন। ‘রইস’ নির্মাতারা ইচ্ছে করে তাঁদের ছবি মুক্তির তারিখ এগিয়ে এনেছেন বলে অভিযোগ করেছিলেন হৃতিকের বাবা রাকেশ রোশন। কিন্তু হৃতিক জানাচ্ছেন, সম্ভবত ‘রইস’ নির্মাতারা ২৫ তারিখ ছাড়া আর কোনও ঠিকঠাক তারিখ পাননি। তবে যাই হোক, শাহরুখ খান তাঁর বন্ধু। বন্ধুত্ব আর ব্যবসা আলাদা ঠিকই কিন্তু তাঁরা বন্ধুই থেকে যাবেন।

তাঁকে যখন লোকে আন্তর্জাতিক মানের তারকা বলে তাঁর দুর্দান্ত লাগে। কিন্তু যখন তারা জিজ্ঞাসা করে, তিনি হলিউডে যাচ্ছেন না কেন, তাঁর জবাব, এখানেই যখন ভক্তরা তাঁকে আন্তর্জাতিক তারকার তকমা পরিয়েছেন, তখন আর হলিউড যাওয়ার দরকার কী।

তিন খান কেন যাচ্ছেন না হলিউড? হৃতিক মনে করেন, সম্ভবত তা তাঁদের লক্ষ্য নয়। বোধহয় তাঁরা চান, বলিউডেই ভাল ছবি নির্মাণ করতে। -এবেলা।